বুধবার, ১৩ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০৯ মার্চ, ২০১৯, ১১:২৭:৫৪

গুণে ভরা বেগুন

গুণে ভরা বেগুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক: পুষ্টিবিদরা বলছেন, পুষ্টিতে ভরপুর এক সবজির নাম বেগুন। সুস্বাস্থ্যের বেলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার রাখা এই সবজিটি প্রাচীন কাল থেকেই আয়ুর্বেদিক শাস্ত্রে ব্যবহার হয়ে আসছে। বিষয়টি অনেকেরই জানা নেই বলে জানিয়েছেন আয়ুর্বেদ পণ্ডিতেরা।

আসুন জেনে নিই বেগুনের একাধিক আয়ুর্বেদিক ব্যবহার:

যকৃতের সমস্যা:

কচি বেগুন পুড়িয়ে তার সঙ্গে গুড় মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে খান, আপনার যকৃতের সমস্যা উপশম হবে। দূর হবে যকৃত আক্রান্তকারী জীবণুরা।

অনিদ্রা দূরীকরণ:

আয়ুর্বেদ বিজ্ঞান বলছে বেগুন খেলে ভালো ঘুম হয়। যান্ত্রিক জীবনে অনেকেই অনিদ্রা সমস্যায় ভোগেন। আর রাতে ঘুম না এলে দেহে অন্যান্য রোগ বাসা বাঁধে। বেঁচে থাকতে রাতে নিয়মিত ঘুম অতি জরুরি। আর অনিদ্রা দূর করতে বেগুন অত্যন্ত কার্যকরী।

নিদ্রালু:

আয়ুর্বেদ বিজ্ঞান বলছে, সন্ধ্যার পর সামান্য পরিমাণে বেগুন পুড়িয়ে তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে রাতে ভালো ঘুম হবে নিশ্চিত।

কিডনি জটিলতা:

কিডনি সমস্যায় বেগুনের প্রভাব খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পুষ্টিবিদরা বলছেন, বেগুন কিডনির নানা সমস্যা ও মূত্রনালির সংক্রমণ ঠেকায়। খাদ্য তালিকায় বেগুন নিয়মিত রাখলে প্রসাবের সময় অস্বস্তি কমে যায়।

চর্মরোগ:

বেগুনে অ্যালার্জি আছে অনেকের। বেগুন দিয়ে রান্না করা তরকারি খেলেই শরীরে চুলকানি বেড়ে যায় অনেকের। কিন্তু আশ্চর্য হলেও সত্য বেগুনেই রয়েছে এর অ্যালার্জি নিরাময়ের উপায়। তবে এক্ষেত্রে বেগুন খেতে হবে না। একটি বেগুনকে ভালো করে পুড়িয়ে ছাই করে নিতে হবে। এরপর ওই ছাই গায়ে মাখলে আপনার দেহ আর চুলকাবে না। সেরে যাবে চর্মরোগও।

জ্বর, সর্দি-কাশি:

জ্বর হলে বেগুন হতে পারে আশ্চর্য রকমের কার্যকরী ওষুধ। চিকিৎসকদের মতে, জ্বরের সময় কচি, বীজহীন বেগুন খেলে জ্বর দ্রুত উপশম হয়। একইভাবে সর্দি-কাশিতেও বেগুনের কার্যকরী ক্ষমতা অবিশ্বাস্য। কচি বেগুনের রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে কফজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

বীর্যের বৃদ্ধি:

অক্ষম পুরুষের চিকিৎসায় আর্য়ুবেদিক চিকিৎসকেরা বেগুন খেতে দেন রোগীকে। বেগুন বীর্যের পরিমাণ বৃদ্ধিতে অত্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

ঋতুস্রাব সমস্যায়:

পুরুষের বীর্য উৎপাদনের মতো নারীদের অনিয়মিত ঋতু সমস্যা দূর করতেও বেগুন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে বলে জানিয়েছেন আর্য়ুবেদ চিকিৎসকরা।

হজম সমস্যা:

প্রতিদিন কচি, বীজহীন বেগুন খেলে হজমের সমস্যা ও কোষ্টকাঠিন্য দূর হবে।

লাইফস্টাইল ডেস্ক: পুষ্টিবিদরা বলছেন, পুষ্টিতে ভরপুর এক সবজির নাম বেগুন। সুস্বাস্থ্যের বেলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার রাখা এই সবজিটি প্রাচীন কাল থেকেই আয়ুর্বেদিক শাস্ত্রে ব্যবহার হয়ে আসছে। বিষয়টি অনেকেরই জানা নেই বলে জানিয়েছেন আয়ুর্বেদ পণ্ডিতেরা।

আসুন জেনে নিই বেগুনের একাধিক আয়ুর্বেদিক ব্যবহার:

যকৃতের সমস্যা:

কচি বেগুন পুড়িয়ে তার সঙ্গে গুড় মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে খান, আপনার যকৃতের সমস্যা উপশম হবে। দূর হবে যকৃত আক্রান্তকারী জীবণুরা।

অনিদ্রা দূরীকরণ:

আয়ুর্বেদ বিজ্ঞান বলছে বেগুন খেলে ভালো ঘুম হয়। যান্ত্রিক জীবনে অনেকেই অনিদ্রা সমস্যায় ভোগেন। আর রাতে ঘুম না এলে দেহে অন্যান্য রোগ বাসা বাঁধে। বেঁচে থাকতে রাতে নিয়মিত ঘুম অতি জরুরি। আর অনিদ্রা দূর করতে বেগুন অত্যন্ত কার্যকরী।

নিদ্রালু:

আয়ুর্বেদ বিজ্ঞান বলছে, সন্ধ্যার পর সামান্য পরিমাণে বেগুন পুড়িয়ে তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে রাতে ভালো ঘুম হবে নিশ্চিত।

কিডনি জটিলতা:

কিডনি সমস্যায় বেগুনের প্রভাব খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পুষ্টিবিদরা বলছেন, বেগুন কিডনির নানা সমস্যা ও মূত্রনালির সংক্রমণ ঠেকায়। খাদ্য তালিকায় বেগুন নিয়মিত রাখলে প্রসাবের সময় অস্বস্তি কমে যায়।

চর্মরোগ:

বেগুনে অ্যালার্জি আছে অনেকের। বেগুন দিয়ে রান্না করা তরকারি খেলেই শরীরে চুলকানি বেড়ে যায় অনেকের। কিন্তু আশ্চর্য হলেও সত্য বেগুনেই রয়েছে এর অ্যালার্জি নিরাময়ের উপায়। তবে এক্ষেত্রে বেগুন খেতে হবে না। একটি বেগুনকে ভালো করে পুড়িয়ে ছাই করে নিতে হবে। এরপর ওই ছাই গায়ে মাখলে আপনার দেহ আর চুলকাবে না। সেরে যাবে চর্মরোগও।

জ্বর, সর্দি-কাশি:

জ্বর হলে বেগুন হতে পারে আশ্চর্য রকমের কার্যকরী ওষুধ। চিকিৎসকদের মতে, জ্বরের সময় কচি, বীজহীন বেগুন খেলে জ্বর দ্রুত উপশম হয়। একইভাবে সর্দি-কাশিতেও বেগুনের কার্যকরী ক্ষমতা অবিশ্বাস্য। কচি বেগুনের রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে কফজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

বীর্যের বৃদ্ধি:

অক্ষম পুরুষের চিকিৎসায় আর্য়ুবেদিক চিকিৎসকেরা বেগুন খেতে দেন রোগীকে। বেগুন বীর্যের পরিমাণ বৃদ্ধিতে অত্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

ঋতুস্রাব সমস্যায়:

পুরুষের বীর্য উৎপাদনের মতো নারীদের অনিয়মিত ঋতু সমস্যা দূর করতেও বেগুন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে বলে জানিয়েছেন আর্য়ুবেদ চিকিৎসকরা।

হজম সমস্যা:

প্রতিদিন কচি, বীজহীন বেগুন খেলে হজমের সমস্যা ও কোষ্টকাঠিন্য দূর হবে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?