শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭, ০৫:০২:২২

আওয়ামীলীগের সমাবেশে মানুষের ঢল

আওয়ামীলীগের সমাবেশে মানুষের ঢল

ঢাকা: বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় নাগরিক কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে মানুষের ঢল নেমেছে।

বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ দেওয়ার স্মৃতি বিজড়িত স্থান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যোগ দিতে শনিবার সকাল থেকেই নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসতে শুরু করেন আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ছাড়া ঢাকার আশপাশের নানা এলাকা থেকে আসতে শুরু করেছেন আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। উৎসবমুখর পরিবেশে এসব মানুষের মুখে ছিল একাত্তরের সেই বিখ্যাত ‘জয় বাংলা’ স্লোগান। তাদের স্লোগানে সমাবেশ স্থল মুখরিত হয়ে ওঠেছে।

শনিবার বেলা ১২টার পর থেকে মৎস্য ভবন, শাহবাগ, পল্টন, কাকরাইল, প্রেসক্লাব গুলিস্তান, দৈনিক বাংলা ও বিজয়নগর এলাকার সড়কগুলোতে যানবাহন থেমে থাকতে দেখা যায়। ফলে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা সুসজ্জিত পোশাকে ছোট ছোট মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে হাজির হচ্ছেন। প্রতিটি প্রবেশ পথে উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে দুপুর ২টায় সমাবেশ শুরু হলেও এরই মধ্যো কানায় কানায় ভরে ওঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রতিটি প্রবেশ পথ দিয়ে সুসজ্জিত পোশাকে মিছিল নিয়ে প্রবেশ করছেন অংশগ্রহণকারীরা। উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে সমাবেশস্থলে। এরই মধ্যো কানায় কানায় ভরে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। উদ্যান ছাপিয়ে মানুষ ছড়িয়ে পড়েছে শাহবাগ, টিএসসি চত্বর, দোয়েল চত্বরেও।

নাগরিক কমিটির ব্যানারে আয়োজিত এ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে সভাপতিত্ব করবেন ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, সমাবেশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সমাবেশের জন্য ব্যানার নাগরিক কমিটির হলেও মূল পরিকল্পনায় আওয়ামী লীগের প্রচার উপকমিটি। সমাবেশে বর্তমান আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের সাফল্য, অর্জন ও উন্নয়নের কথা তুলে ধরা হবে।

প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও সমাবেশে বক্তৃতা করবেন পাঁচ বিশিষ্ট নাগরিক। তারা হলেন- অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, শহীদজায়া শ্যামলী নাসরীন চৌধুরী এবং বাংলাদেশে ইউনেস্কোর কান্ট্রি ডিরেক্টর বিট্রিস কালদুল।

সমাবেশে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পরে ইউনেস্কোর প্রতিনিধির হাতে একটি ধন্যবাদ স্মারকও তুলে দেওয়া হবে।

এ আয়োজনে বক্তব্যের ফাঁকে-ফাঁকে থাকছে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। সেখানে আবৃত্তি করবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ও কবি নির্মলেন্দু গুণ। একক সঙ্গীতায়োজনে দেশের বিশিষ্ট শিল্পীদের মধ্যে সাজেদ আকবর, শাহীন সামাদ এবং চন্দনা মজুমদার সঙ্গীত পরিবেশন করবেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় থাকবেন নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার ও শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আবদুল আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নুজহাত চৌধুরী।

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে গত ৩০ অক্টোবর 'মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড' (বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য) হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

 

আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?