রবিবার, ২৭ মে ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০১৮, ০২:৫৮:৩৫

শাহজালালে আমদানি নিষিদ্ধ ভায়াগ্রা-সিগারেট আটক

শাহজালালে আমদানি নিষিদ্ধ ভায়াগ্রা-সিগারেট আটক

ঢাকা : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিপুল পরিমাণ আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশি সিগারেট ও ভায়াগ্রা স্প্রে আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর এবং ঢাকা কাস্টমস হাউস।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে পৃথক অভিযানে এসব সিগারেট ও ভায়াগ্রা স্প্রে আটক করা হয়। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এবং ঢাকা কাস্টমস হাউসের সহকারি কমিশনার সাইদুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

ড. মইনুল খান জানান, শুল্ক গোয়েন্দা গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে আমদানি নিষিদ্ধ ১৭০ কার্টনে থাকা ৩৪ হাজার শলাকা বিদেশি সিগারেট ও ১০০ প্যাক ভায়াগ্রা স্প্রে ভিগা আটক করেছে।

কুয়েত থেকে কে ডব্লিউ২৮৩ ফ্লাইট রাত ১২ টা ৫০ মিনিটে শাহজালালে অবতরণ করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা ব্যাগেজ বেল্টসহ গ্রিন চ্যানেলে বিশেষ নজরদারি বজায় রাখে। ৩ নং বেল্ট থেকে ২টি লাগেজসহ সাইফুল ইসলাম নামের এক যাত্রীকে আটক করা হয়। তার বাড়ি কক্সবাজারের মহেশখালী এলাকায়। পরে কাস্টমস হলে রাত ১টা ৩০ মিনিটে তার ২টি লাগেজ থেকে এসব সিগারেট ও ভায়াগ্রা আটক করা হয়।

আটক এসব সিগারেট ৩০৩ ব্র্যান্ডের। আমদানি নীতি আদেশ অনুযায়ী সিগারেট প্যাকেটের গায়ে বাংলায় ধূমপানবিরোধী সতর্কীকরণ লেখা ব্যতিত বিদেশি সিগারেট আমদানি করা যায় না এবং ভায়াগ্রা আমদানি নিষিদ্ধ।

পণ্যের শুল্ককরসহ আটক পণ্যের মূল্য প্রায় ১২ লাখ টাকা। আটককৃত সিগারেট ও ভায়াগ্রার বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানান মইনুল খান।

ঢাকা কাস্টমস হাউসের সহকারি কমিশনার সাইদুল ইসলাম জানান, রাত ২টা ৩০ মিনিটে দুইজন যাত্রীর কাছ থেকে মন্ড, ডানহিল ও বেনসন হেজেজ ব্র্যান্ডের ৩১৮ কার্টুন সিগারেট আটক করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাস্টম হাউস ঢাকার প্রিভেন্টিভ দল বিমানবন্দরে কুয়েত-ঢাকাগামী কেইউ২৮৩ যোগে আসা যাত্রীর নিকট থেকে এসব সিগারেট আটক করেছে।

দুই যাত্রী হলেন- চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির শাহাদাত হোসেন ও হাটহাজারীর মো. সোহেল। তারা দুইজনেই দুবাই থেকে কুয়েত হয়ে ঢাকায় আসেন।

সিগারেটের উপর উচ্চ শুল্ক (প্রায় ৪৫০%) পরিহারের জন্যই এসব সিগারেট আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। শুল্ককরাদিসহ আটক সিগারেটের মূল্য প্রায় ১৯ লাখ ৮ হাজার টাকা।

এই আটকের ঘটনায় শুল্ক আইন, ১৯৬৯ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান সাইদুল ইসলাম।

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?