শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৯, ০১:৪৬:৫১

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের ভেতর সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের ভেতর সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

ঢাকা : ঢাকার ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে বিক্রি হওয়া মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের ভেতর সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার এক রিট আবেদনের শুনানিতে হাইকোর্টের বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
সোমবার দায়ের করা ওই রিটে ঢাকার ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি হয় উল্লেখ করে তা বন্ধের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছিল। রিটে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।
এর আগে গত ১১ জুন বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকার প্রায় ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতেই মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার
ফার্মগেটের খামারবাড়িতে আ কা মু গিয়াস উদ্দিন মিলকী মিলনায়তনে ‘বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।
মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার সেদিন বলেন, গত ৬ মাসে নিয়মিত বাজার তদারকির প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ঢাকা শহরের ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ভোক্তা অধিকার আইনের বিভিন্ন ধারায় অনেক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি কয়েকটি প্রতিষ্ঠান সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  দুই স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া, ধরে গণধোলাই

  ২৫ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল যুক্তরাষ্ট্র

  টেনিস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

  বাঁশে ঝুলিয়ে যুবককে নির্যাতন, সালাম মেম্বার ধরা পড়লেন

  পিইসি পরীক্ষায় ‘বহিষ্কার’ কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

  বিভিন্ন জেলায় আজও পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তি

  কিশোরগঞ্জে ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, ট্রেন চলাচল বন্ধ

  কারণ ছাড়া প্রসূতির সিজার: ২৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট

  ‘সন্তানরা আরেকবার রাস্তায় নামলে আমাদের কারও পিঠে চামড়া থাকবে না’

  একটি গোষ্ঠী চাল নেই, লবণ নেই বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

  অপপ্রচারে কান দিয়ে বিভ্রান্ত হবেন না: প্রধানমন্ত্রী

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?