বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৩ আগস্ট, ২০১৯, ০৯:২৯:২২

সিলেটে ৮০০ চামড়া রাস্তায় ফেলে মাদ্রাসার প্রতিবাদ

সিলেটে ৮০০ চামড়া রাস্তায় ফেলে মাদ্রাসার প্রতিবাদ

সিলেট: প্রতিবারের মতো এবারও ঈদুল আজহায় সিলেটে নগরীর বিভিন্ন বাসা থেকে প্রায় ৮০০ পশুর চামড়া সংগ্রহ করেছিল খাসদবির দারুস সালাম মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। এ চামড়া বিক্রি করে যে টাকা আয় হতো তা দিয়ে মাদ্রাসার কিছুটা খরচ চলত। কিন্তু অন্যান্যবারের মতো এবারো চামড়াগুলো সংগ্রহ করলেও ন্যায্য দাম না পাওয়ায় সেগুলো রাস্তায় ফেলে এসেছেন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ।
জানা গেছে, সারাদিনে সংগ্রহ করা ৮০০টি পশুর চামড়া নিয়ে রাতে আম্বরখানায় বিক্রি করতে নিয়ে গিয়েছিলেন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ক্রেতারা মাত্র ২৫-৩০ টাকা দাম করছিলেন প্রতিপিস চামড়ার। এসময় সিলেটের ব্যবসায়ীরা অজুহাত দেখান তারা গতবারের দেয়া চামড়ার টাকাই এখনো ঢাকা থেকে পাননি। সেগুলো বকেয়া থাকায় এবার তারা দাম দিয়ে চামড়া কিনতে পারছেন না। এমনকি এই টাকায় তারা যে চামড়াগুলো কিনছেন সেগুলোও বিক্রি করা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন তারা।
একপর্যায়ে মাদ্রাসার পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের ন্যায্য দাম দেয়ার দাবি জানিয়ে বলা হয় প্রয়োজনে বাকিতে চামড়াগুলো কিনে নিতে। ছয়মাস পরে টাকা দিলেও হবে। কিন্তু ব্যবসায়ীরা সেটিও মানেন নি।ফলে চামড়া ব্যবসায়ীদের গঠিত সিন্ডিকেটের প্রতিবাদ স্বরুপ ৮০০ চামড়া আম্বরখানায় ফেলে চলে যান তারা।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ।

এই বিভাগের আরও খবর

  ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ১৬২৬, মৃত্যু ২

  ‘২১ আগস্ট আল্লাহ নিজ হাতে শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছেন’

  প্রেম করে বিয়ে, এক রশিতে ফাঁস দিল নবদম্পতি

  বরিশালে জেএমবি’র সদস্য আটক

  কুপ্রস্তাবে ‘না’ বলায় পপির চাকুরিচ্যুতি: সিটি ব্যাংকের এমডিসহ ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

  যে খবর দিল আবহাওয়া অফিস

  ছুটি শেষে এসে দেখে গার্মেন্টস বন্ধ, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

  জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

  লক্ষ্মীপুরে ব্যবসায়ীকে গলাকেটে হত্যা

  রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন পরিকল্পনা স্থগিত করার আহ্বান হিউম্যান রাইটস ওয়াচের

  ২১শে আগস্টের গ্রেনেড হামলা, যেভাবে রক্ষা পেয়েছিলেন শেখ হাসিনা

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?