শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৯, ১০:৫৫:১৩

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির বাড়িতে হামলা, আ’লীগ নেতা আটক

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির বাড়িতে হামলা, আ’লীগ নেতা আটক

জামালপুর : মসজিদ কমিটির সভাপতি পদ নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে জামালপুরের বকশীগঞ্জে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের পৈত্রিক বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নিলক্ষিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম খোকাকে আটক করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ। বুধবার সকাল ১১টার দিকে নিজ বাসা থেকে খোকাকে আটক করে পুলিশ। এর আগে স্থানীয় মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম খোকার বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে।

বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের ভাতিজা তারেকুল ইসলাম জানান, গত রাতে আমি ও আমার ভাই আমাদের বাড়ির সামনে কথা বলার সময় সাইফুল ইসলাম খোকা ও তার ভাই সালেহ আহাম্মেদ ময়না আমাদের উপর অতির্কিত হামলা চালায়। পরে তারা সকালে আমার চাচা মির্জা হোসেইন হায়দারের বাসায় হামলা চালায়। আমরা বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে আতংকে দিন যাপন করছি।

এদিকে বিচারপতি মীর্জা হোসাইন হায়দারের বাড়িতে হামলার প্রতিবাদে নিলক্ষিয়া বাজারের সব ব্যবসায়ী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছেন।  এ ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুবুল আলম সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে না চাইলেও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় সাইফুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যান্যদের আটকের জন্য অভিযান চলছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  এবার লালমনিরহাটে মামলা না নিয়ে ধর্ষকের সঙ্গে বাল্যবিয়ে দিল পুলিশ

  যুবলীগ নেতা ‘ক্যাসিনো খালেদ’ ৭ দিনের রিমান্ডে

  বাংলাদেশের জন্য রোহিঙ্গারা বিরাট বোঝা: প্রধানমন্ত্রী

  আমাদের প্রযুক্তিগত সক্ষমতায় ঘাটতি আছে: দুদক চেয়ারম্যান

  ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রসংগঠনকে বিশেষ সুবিধা দিতেই, এ জালিয়াতি: সাদাদল

  সর্বোচ্চ আদালতেও মিতুর জামিন বহাল

  বেরিয়ে আসছে থলের বিড়াল, ক্যাসিনোর টাকার ভাগ পেতেন নেতারাও

  রাজধানীতে জুয়ার আসর বসতে দেয়া হবে না: ডিএমপি কমিশনার

  ১৪৩ যাত্রী নিয়ে শাহজালালে বিমানের জরুরি অবতরণ

  নারায়ণগঞ্জে ২ মেয়েসহ মাকে গলা কেটে হত্যা

  মুজিব হত্যাকারী নূর চৌধুরীর স্ট্যাটাস প্রকাশে বাধা নেই: কানাডার আদালত

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?