শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ০৯ অক্টোবর, ২০১৯, ০৮:১৩:২৯

যে অভিযোগে ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

যে অভিযোগে ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

ঢাকা : গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হলো নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে। নিজের প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স প্রতিষ্ঠানে ট্রেড ইউনিয়ন গঠন করায় কর্মচারীদের চাকরীচ্যুত করার অভিযোগে ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলাগুলো দায়ের করা হয়।

তিন মামলায় সমনের জবাব দেয়ার জন্য দিন ধার্য করা ছিল। কিন্তু ড. ইউনূস আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। বুধবার (৯ অক্টোবর) আদালত এই পরোয়ানা জারি করেন।

মামলার বাদীরা হলেন গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের সদ্য চাকরিচ্যুত তিন কর্মচারী এমরানুল হক, শাহ্ আলম ও আব্দুস সালাম। তারা বলেন, প্রতিষ্ঠানে ইউনিয়ন গঠন করার কারণে হয়রানিমূলক বদলি, ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং সবশেষে চাকরিচ্যুত করায় গত ৩ জুলাই ড. ইউনূসসহ তিনজনের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করি। আদালত এ বিষয়ে জবাব দেওয়ার জন্য সমন জারি করেছেন। যে অনুযায়ী ১০ জুলাই (বুধবার) শ্রম আদালত থেকে তাদের বিরুদ্ধে সমন জারি করা হয়েছে। আশা করি, আমরা ন্যায়বিচার পাব।

১. আব্দুস সালাম- কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানার চড়াইকোল গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে। তিনি প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক। ২০০৫ সালের ২৭ জুন গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে স্থায়ী পদে জুনিয়র এমআইএস অফিসার (কম্পিউটার অপারেটর) হিসেবে যোগদান করেন তিনি।

২. শাহ আলম- নিলফামারী জেলার এলাহী মসজিদপাড়ার নজরুল ইসলামের ছেলে। প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের প্রচার সম্পাদক তিনি। ২০১১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে স্থায়ী পদে জুনিয়র এমআইএস অফিসার (কম্পিউটার অপারেটর) হিসেবে যোগদান করেন।

৩. এমরানুল হক- হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানার নারিকেলতলা গ্রামের সফর আলী ছেলে। তিনি প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সদস্য। তিনি ২০১৩ সালের ১৪ মার্চ গ্রামীণ কমিউনিকেশান্সে স্থায়ী পদে জুনিয়র এমআইএস অফিসার (কম্পিউটার অপারেটর) হিসেবে যোগদান করেন।

এই তিনজনের দাবি, প্রতিষ্ঠানে ইউনিয়ন গঠন করায় তাদের হয়রানিমূলক বদলি, ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং সবশেষে চাকরিচ্যুত করা হয়।

এই অভিযোগে গত ৩ জুলাই ড. ইউনূসসহ তিনজনের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করেন তারা। এ বিষয়ে জবাব দেওয়ার জন্য অভিযুক্তদের নামে সমন জারি করেছে আদালত।

জানা গেছে, মামলার বাদীরা গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে স্থায়ী পদে এমআইএস অফিসার (কম্পিউটার অপারেটর) হিসেবে কাজে যোগদান করেন। শ্রমিক হিসেবে নিজেদের সংগঠিত হওয়া ও নিজেদের কল্যাণের জন্য ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের বিষয়ে সিদ্বান্ত গ্রহণ করেন। সে অনুযায়ী নিজেরাসহ অন্যান্য শ্রমিক সহকর্মীদের নিয়ে ‘গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন’ (প্রস্তাবিত) নামে একটি ইউনিয়ন গঠন করেন এবং তা আইন অনুযায়ী রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  ৩০ বছর পর সগিরা মোর্শেদ হত্যার ‘রহস্য উদ্ঘাটন’, গ্রেফতার ৪

  ৬ ঘণ্টা পর ঢাকা-উত্তরাঞ্চলের রেল যোগাযোগ স্বাভাবি

  পেঁয়াজের দাম বাড়ানো ব্যবসায়ীদের ক্রসফায়ারের দাবি সংসদে

  গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশে তথ্য যাচাই করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের গণবিজ্ঞপ্তি

  স্টেশন মাস্টারের ভুলে ট্রেনে আগুন: চালকসহ আহত ২০, উত্তরবঙ্গে রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

  বগুড়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

  ‘ক্ষুদ্র ঋণ দারিদ্র্য বিমোচন নয়, লালন করে’

  সিরাজগঞ্জে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত, বগিতে আগুন

  নিঃস্ব হয়ে দেশে ফিরেছে হতভাগ্য ৮৬ বাংলাদেশি

  সব ধরনের ‘রেনিটিডিন’ ওষুধ বিক্রি স্থগিত

  'ডাবল সেঞ্চুরি' করে পেঁয়াজের বিশ্ব রেকর্ড!

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?