বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ০৭:৩৬:৪৮

বেনাপোলে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশে বিএসএফ সদস্য আটক

বেনাপোলে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশে বিএসএফ সদস্য আটক

যশোর : বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের অভিযোগে বিএসএফের এক সদস্যকে আটক করেছে বিজিবি।

আটককৃত বিএসএফ সদস্যের নাম শ্রী চৈতন্য। দুই দেশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সমঝোতায় তাৎক্ষণিকভাবে তাকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাংলাদেশি একজন চোরাচালানীকে আটকের ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে।

৪৯ বিজিবির বেনাপোল চেকপোস্টের ইনচার্জ সুবেদার মিজানুর রহমান জানান, বেনাপোল চেকপোস্ট সংলগ্ন বড়আঁচড়া গ্রামে খোকনের ছেলে আলী হোসেন অবৈধভাবে ভারতে গেলে বিএসএফ সদস্যরা তাকে আটক করে। আটক আলী হোসেন কৌশলে পালিয়ে বাংলাদেশ অভিমুখে দৌড়ে ঢুকে পড়ে। তাকে ধরতে পিছু নেয় বিএসএফের ৫ সদস্য।

একপর্যায়ে তারা নোম্যান্সল্যান্ড পেরিয়ে বাংলাদেশের ২০০ গজ অভ্যন্তরে বেনাপোল চেকপোস্টের পুরনো ইমিগ্রেশন বাউন্ডারির মধ্যে ঢুকে পড়ে আলী হোসেনকে ধরে বেদম মারধর করে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বিজিবি সদস্যরা। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে ৪ বিএসএফ সদস্য পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে বিএসএফের হেড কনস্টেবল শ্রী চৈতন্য।

মিজানুর রহমান জানান, তাৎক্ষণিকভাবে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ সদস্যকে ভারতে হস্তান্তর করা হয়। তবে চোরাচালানী আলী হোসেন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  ব্রিটিশ হাইকমিশনারের বাসায় ঘরোয়া বৈঠকে বিদেশি কূটনীতিকরা!

  ইসি পোস্ট অফিসে পরিণত হয়েছে: সুজন

  ঢাকার সিটি নির্বাচনে ১০৪ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ

  দুই সন্তানের মাকে নিয়ে উধাও হওয়া সেই যুবলীগ নেতা কারাগারে

  ধর্মীয় অনুভূতি ও মূল্যবোধে আঘাত হলে কঠোর ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী

  আমতলীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়েগুলোতে প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে কোঠার চেয়ে অতিরিক্ত শিক্ষক গ্রামাঞ্চলে

  ‘চীন থেকে সব বাংলাদেশি এখনই ফিরতে চান না’

  ‘রাজউককে হেয় করে বাহবা নেওয়ার চেষ্টা করেছে টিআইবি’

  গৌরীপুরে বাসচাপায় অটোরিকশার ৪ যাত্রী নিহত

  রাজউকের সেবা নিতে দুই কোটি টাকা পর্যন্ত ঘুষ লাগে: টিআইবি

  কারা হাসপাতালে ১১৭ জন চিকিৎসক নিয়োগের নির্দেশ

আজকের প্রশ্ন

ঢাকার সিটি নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট হলে জনগণের রায় প্রতিফলিত হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আপনিও কি তাই মনে করেন?