সোমবার, ২০ মে ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১০ মার্চ, ২০১৯, ১১:৫৮:২৩

ভারতে পাঠানোর আশ্বাসে ৭ জন মিলে দুই তরুণীকে গণধর্ষণ

ভারতে পাঠানোর আশ্বাসে ৭ জন মিলে দুই তরুণীকে গণধর্ষণ

বেনাপোল (যশোর): যশোরের বেনাপোল সীমান্তে দুই তরুণীকে আটকে ধর্ষণের অভিযোগে ছয় ধর্ষককে আটক করেছে বেনাপোল পোর্ট থানার পুলিশ। রোববার সন্ধ্যার দিকে পুটখালী সীমান্ত এলাকা থেকে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পুলিশ তাদের আটক করে। উদ্ধার করা হয়েছে দুই তরুণীকে। এদের একজনের বাড়ি কুষ্টিয়ায়। অপরজনের চাঁদপুর।

ধর্ষকরা হলেন, বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামের আলমের ছেলে সোহেল (৩০), আজগারের ছেলে আরিফ (২৯), আব্দুল খালেকের ছেলে আব্দুল্লা (২৭), মোর্শেদের ছেলে শিমুল (৩৫), আয়ুব বিশ্বাসের ছেলে প্লাবন (২৮) ও সামছুর কসাইয়ের ছেলে মোরশেদ (৩৫)। রাফিউল (৩২) নামে আরও এক ধর্ষক পলাতক থাকায় তার বাবা ছাদেককে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, ভারতে আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ওই দুই তরুণী শনিবার সকালে পুটখালী সীমান্তে দালালদের মাধ্যমে আসে। এরপর তাদের রাতে শাহ-আলম বিশ্বাসের বাড়িতে আটকে রেখে গভীর রাতে একটি পুকুরপাড়ে নিয়ে ৭ জন পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ও এলাকাবাসী সারাদিন অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে আটক করে।

বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু সালে মাসুদ করিম ধর্ষকদের আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ খবর জানতে পেরে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ধর্ষকদের আটক করে থানায় নিয়ে আসি। তাদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় মামলা হয়েছে। দুই তরুণী বর্তমানে পুলিশের হেফাজতে আছে। তারা যে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বিষয়টি প্রাথমিক নিশ্চিত হওয়া গেছে। আগামীকাল তাদের যশোর আদালতে পাঠানো হবে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?