সোমবার, ১৮ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ০১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪০:৩৭

স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করে তরুণীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ

স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করে তরুণীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ

ঢাকা: আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে দিনের পর দিন ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন লালমনিরহাটের এক নারী। এ অভিযোগে ওই পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে আল আমিন নামে ওই পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে লালমনিরহাট চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সাল থেকে ওই নারীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেমে জড়ান আল আমিন। অন্তরঙ্গ মুহূর্তের স্থির ও ভিডিওচিত্র ধারণ করে ওই নারীকে ধর্ষণ করে আসছিলেন তিনি। একপর্যায়ে বিয়ে করার কথা দিয়ে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর স্বামীকে তালাক দিতে বাদীকে বাধ্য করেন অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল।
কিন্তু দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও বিয়ে করতে টালবাহানা শুরু করলে বিষয়টি পুলিশকে জানান ওই নারী।

অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল মো. আল আমিনের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোনও কথা বলতে রাজি হননি।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলম বলেন, বাদীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে কনস্টেবল আল আমিনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  কেনাকাটায় দুর্নীতি: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ১২ জনকে তলব

  ১১৮ জনের অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে দুদক

  ধর্ষণের সময় কলা বাগানেই জ্ঞান হারায় স্কুলছাত্রী

  এক সন্তানের জননীকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ

  দুই বন্ধুর ধর্ষণ শেষ, তৃতীয় জনকে লাথি মারল তরুণী

  বন্ধুকে বাজারে পাঠিয়ে তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ!

  স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করে তরুণীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ

  হোটেল কক্ষে কলেজ ছাত্রীসহ যুবলীগ নেতা আটক

  ঢাকার ফ্ল্যাটে তরুণীকে টানা ধর্ষণের অভিযোগ, বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

  রংপুরে নারীসহ চট্টগ্রামের এএসপি আটক, অতঃপর...

  মহিলা হোস্টেলে ঢুকে কলেজছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের নিপীড়ন!

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?