মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১৭ জুন, ২০১৯, ০৩:০৮:৩১

ওসি মোয়াজ্জেম কারাগারে

ওসি মোয়াজ্জেম কারাগারে

ঢাকা : ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে আজ সোমবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে হাজির করা হয়েছে।

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালত কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

আজ সোমবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে মোয়াজ্জেমকে আদালতে হাজির করা হয় বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী মাসুমা আক্তার। তিনি আরো জানান, আদালতে তিনি জামিন আবেদন করেছিলেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আগামী ৩০ জুন মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

গতকাল রোববার বিকেল ৪টার দিকে রাজধানীর হাইকোর্ট এলাকা থেকে ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। ফেনীর সোনাগাজী থানা থেকে মোয়াজ্জেমের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় পরবর্তী সময়ে তাঁকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি ওই থানাকে অবহিত করে ডিএমপির শাহবাগ থানা

গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টা করা হয়। এর আগে ২৭ মার্চ নুসরাত মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যায়। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তাঁর ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

পরবর্তী সময়ে ওই ঘটনায় ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন। আদালতের নির্দেশে মামলটি তদন্ত করে ঢাকার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। তদন্ত শেষে গত ২৭ মে পিবিআই আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়। ওই দিনই মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল। তার পর থেকেই পলাতক ছিলেন মোয়াজ্জেম।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?