শুক্রবার, ২২ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৩ মার্চ, ২০১৮, ০৫:৪০:৫৬

ঘর বাঁধতে সঙ্গীর ইচ্ছা আছে তো

ঘর বাঁধতে সঙ্গীর ইচ্ছা আছে তো

লাইফস্টাইল ডেস্ক : কোনো সম্পর্কে আবদ্ধ হবার পর সবাই-ই চায় সেই সম্পর্ক পরিণতি পাক। এরপর আসে ঘর বাঁধার স্বপ্ন। কিন্তু দুজনের মধ্যে আপাতদৃষ্টিতে সম্পর্ক ঠিকঠাক থাকলেও অনেক সময় ভবিষ্যতের ভাবনায় কেউ কেউ পিছুটান দিতে শুরু করে। আর সেখান থেকেই তৈরি হয় সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা। তাই সম্পর্ক টেকানো বা দুজনের একসঙ্গে ঘর বাঁধা হবে কিনা সেটা আগে থেকেই সঙ্গীর হাবভাব দেখে বুঝে নিতে চেষ্টা করুন।

প্রয়োজনে কাছে না পাওয়া
যখন আপনার তাকে সবচেয়ে বেশি দরকার, তখন পাশে পাবেন না। আর সে যদি আপনার প্রকৃত বন্ধু হয় তবে আপনার যে কোনও বিপদে সে আপনার পাশে এসে দাঁড়াবে। কিন্তু যখনই আপনার ডাকে সে সাড়া দেবে না তখনই বুঝবেন কোথাও একটা সমস্যা রয়েছে।

ভবিষ্যত নিয়ে অনীহা
আপনার সঙ্গী যদি ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে একেবারেই আগ্রহ না দেখান বা যখনই এই বিষয়ে আপনি কথা বলেন সে এড়িয়ে যায় তাহলে সতর্ক হবেন। কারণ সমস্যা থাকলেই এ কথাগুলো বলার সময়ে সে অন্য প্রসঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করবে যাতে আপনি আর এগোতে না পারেন।

পরিবার নিয়ে লুকোচুরি
যদি পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা বললে বা বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করার কথা বললে দেখেন আপনাকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে বা ঝামেলা করছে, তখন ভাবুন। এটার স্বাভাবিকতা যাচাই-বাছাই করার চেষ্টা করুন।

দায়িত্ব গ্রহণে অজুহাত
অনেকদিন দেখা-সাক্ষাতের পরও বিয়ের কথা তুললে অনেকেই বলে, সবকিছুতে বড্ড তাড়াহুড়ো হয়ে যাচ্ছে। কেউ কেউ আবার বলে, আমার এখনও দায়িত্ব নেওয়ার সময় আসেনি। এমন অজুহাত দেখালে তাঁর দায়িত্ব গ্রহণের ইচ্ছা সম্পর্কে আপনার মনেও সন্দেহ জাগতেই পারে। এবং সেটাই স্বাভাবিক।

প্রশংসা না করা

প্রেমিক বা প্রেমিকার জন্য অনেক কিছু করার পরও যদি তাঁর কাছ থেকে প্রশংসাবাণী শুনতে না পান বা তাঁর হাবভাবে কৃতজ্ঞতাবোধের অভাব থাকে তবে সেই সম্পর্ক নিয়ে নতুন করে ভাবনা চিন্তা করুন। যাতে করে পরে পস্তাতে না হয়।

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?