বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ০৭ নভেম্বর, ২০১৮, ১০:৩০:৪৫

এক রাতেই দূর হবে ব্রণ!

এক রাতেই দূর হবে ব্রণ!

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ব্রণ হবার পেছনে অনেক কারণ থাকে। এর মাঝে একটি বড় কারণ হলো স্ট্রেস। ঈদের সময়ে রান্না, মাংস সামলানো, অতিথি, ভ্রমণ অনেক কারণেই স্ট্রেস বেড়ে যায় এবং দেখা দেয় ব্রণ। ঈদের দিন মুখে ব্রণ থাকলে অনেকেই আরও বেশি স্ট্রেসের মাঝে পড়ে যান। ঈদের দিন যেন ব্রণ নিয়ে চিন্তা করতে না হয়, তার জন্য জেনে নিন এক রাতে ব্রণ দূর করার ধাপগুলো-

১) মুখ পরিষ্কার করুন আলতোভাবে

মুখে ব্রণ থাকলে ত্বক খুব সংবেদনশীল হয়ে যায়। তাই খুব ঘষাঘষি করে মুখ ধোয়া থেকে বিরত থাকুন। ব্রণ দূর করার জন্য প্রথমে কোমল কোনো একটি ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। এতে ত্বক থেকে তেল, মেকআপ এবং দূষণ দূর হবে। এরপর একটি ফেসওয়াশ দিয়ে আবার মুখ পরিষ্কার করুন, এতে রোমকূপ থেকে ময়লা এবং ব্যাকটেরিয়া পরিষ্কার হবে।

২) ত্বক প্রস্তুত করুন

ব্রণ দূর করার জন্য ত্বককে প্রস্তুত করুন এক্সফলিয়েটর ব্যবহারের মাধ্যমে। এর জন্য বিশেষ কোনো লিভ-অন এক্সফলিয়েন্ট ব্যবহার করতে পারেন। অথবা ত্বকে ময়েশ্চারাইজারও প্রয়োগ করতে পারেন। এতে ত্বক জ্বালাপোড়া কমে আসবে।
সব ধরণের ব্রণ নিজে থেকে দূর করা যায় না।

৩) কখন ব্রণ ফাটাবেন

আপনার ব্রণটি যদি ব্ল্যাকহেড বা হোয়াইটহেড হয় যা সহজেই উঠিয়ে ফেলা যাবে, তাহলে তা উঠিয়ে ফেলুন। কিন্তু ব্রণটি যদি সিস্ট বা নডিউল হয় (ত্বকের নিচে ফুলে আছে অথচ কোনো সাদা অংশ দেখা যাচ্ছে না, ব্যথা করছে) তাহলে আপনার হাত না দেওয়াই ভালো। প্রথমে গরম পানিতে শাওয়ার নিতে পারেন বা মুখে গরম পানিতে ভেজানো কাপড়ের সেঁক দিয়ে দেখতে পারেন। এতে অনেক সময়ে পুঁজ উপরের দিকে উঠে আসে এবং তা বের করে ফেলা সহজ হয়। যদি মনে হয় আপনি বের করতে পারবেন না তাহলে ডার্মাটোলজিস্ট দেখানোই ভালো।

৪) কীভাবে ফাটাবেন

মুখে স্টিম দিতে পারেন ব্রণ ফাটানোর আগে। এতে রোমকূপ খুলবে এবং আপনার কাজ সহজ হবে। ব্যবহার করতে পারেন ব্ল্যাকহেড এক্সট্রাক্টিং টুল বা ব্রণস্টিক। অবশ্যই তা ব্যবহারের আগে জীবাণুমুক্ত করে নিন। ব্রণ বের করার পর অ্যালকোহল ওয়াইপ দিয়ে জায়গাটা মুছে নিন।

৫) স্পট ট্রিটমেন্ট

ব্রণ ফাটিয়ে ফেলার পরেও অনেকে বার বার সেখানে হাত দেন এবং খোঁচাখুঁচি করেন। এটা একেবারেই অনুচিত। আপনার ত্বককে সেরে ওঠার সুযোগ দিন। স্পট ট্রিটমেট অর্থাৎ ঠিক ব্রণের ওপরে প্রয়োগের কিছু স্কিনকেয়ার প্রডাক্ট পাওয়া যায়, সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এতে ওই জায়গায় জীবাণু আক্রমণ করার সুযোগ পায় না। এর জন্য ব্যবহার করতে পারেন স্যালিসাইলিক এসিড, বেনজয়িল পারক্সাইড, সালফার এবং রেটিনয়েড আছে এমন পণ্য। এগুলো রাত্রে ব্যবহার করাই ভালো।
বরফ দিলে ত্বকের জ্বালাপোড়া এবং লালচেভাব কমবে।

৬) মুখে বরফ দিন

ঘুমাতে যাবার আগে ত্বকে বরফ দিতে পারেন। এক ঘণ্টায় তিনবার, প্রতিবার ১০ মিনিট করে পেপার টাওয়েলে পেঁচিয়ে বরফ দিতে হবে। এতে ত্বকের জ্বালাপোড়া এবং লালচেভাব কমবে।

৭) সিল্কের বালিশের কভার ব্যবহার করুন

সপ্তাহে অন্তত একবার বালিশের কভার পাল্টানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন। মুখে ব্রণ থাকলে পরিষ্কার বালিশে ঘুমানো উচিৎ। ব্যবহার করতে পারেন সিল্ক বা শতভাগ সুতি কভার। এতে ত্বকে ঘর্ষণের পরিমাণ কমে এবং ত্বক আরাম পায়।

পরিবর্তীতে যেন ব্রণ ফিরে না আসে এর জন্য ত্বক পরিষ্কার রাখার অভ্যাস গড়ে তুলুন। কখনোই মেকআপ না তুলে ঘুমাতে যাবেন না। ঘুমানোর আগে অবশ্যই মুখ ধুয়ে নিন। স্ট্রেস কম রাখতে যোগব্যায়াম বা মেডিটেশন করতে পারেন।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?