বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ০১:৪৯:০০

বিয়ের অনুষ্ঠানে যেমন সাজ-গয়না

বিয়ের অনুষ্ঠানে যেমন সাজ-গয়না

লাইফস্টাইল ডেস্ক : হঠাৎ কারো বিয়ের দাওয়াতে যাওয়ার নিমন্ত্রণ পেয়েছেন? ভাবছেন সেখানে যেতে কেমন করে সাজবেন, রাতের সাজ হলে সেটা কেমন হবে, দিনের সাজ হলে সেটা কেমন হবে? এমন অনুষ্ঠানের সাজে নিজেকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে চায় সবাই। কেমন হবে পোশাক কিংবা জুয়েলারি তা নিয়েই যত চিন্তা। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে কেমন পোশাক পরবেন, তা নিয়ে থাকছে আজকের আলোচনা।

প্রথমে ভেবে নিন
সংক্ষিপ্ত করে সাজুন। একটি বড় সাইজের লকেটের সঙ্গে কয়েক স্তর বিশিষ্ট নেকলেস কিংবা একসঙ্গে হাতে অনেকগুলো ব্রেসলেট দেখতে যেমন ভালো লাগবে না তেমনি বহন করাও কষ্টকর হবে। তার চেয়ে নিজেকে পরিপাটি রাখতে ও আকর্ষণীয় করে তুলতে একটি দেশীয় ক্লাসি নেকলেস বেছে নিন।

চলতি ফ্যাশনের দিকে নজর রাখুন
সাজার সময় সবসময় চলতি ফ্যাশনের দিকে খেয়াল রাখুন। জুয়েলারি বা গয়নায় সবসময়ই আধুনিক ডিজাইন করা হয় অলংকারগুলো মাথায় রাখুন। বিয়ের উৎসবে বাঙালি ঘরানার অলংকার পরাই ভালো। এখন অলংকারের নকশায় কিছুটা পরিবর্তন তো আসছেই। বিশেষ করে ঝুমকা ও চুড়িতে। এগুলো ক্যাজুয়াল কিংবা ট্রাডিশনাল সব জায়গাতেই বেশ ভালোভাবে মানিয়ে যায়।

ঝুমকা
সাধারণ মানুষ থেকে সেলিব্রেটি সবার কাছেই এখন বিভিন্ন আকৃতির ঝুমকাগুলো অনেক পছন্দের। এগুলো যেমন ওয়েস্টার্ন লুকের সঙ্গে মানিয়ে যায় তেমনি দেশি পোশাকের সঙ্গেও সহজেই পরা যায়। এই বিয়ের মৌসুমে সাজগোজে ঝুমকা পরা তাই আবশ্যকীয় বলা যায়। আপনার মুখমণ্ডল, সাজ আর পোশাকের উপর নির্ভর করে ঝুমকাটি ছোট না বড় হবে। মুখ ছোট হলে, সাজ হালকা হলে মাঝারি ঝুমকাই ভালো। আবার বড় ঝুমকা পরলে গলায় কিছু না পরলেও চলে।

নাকে রিং
আপনি হয়তো সবসময় ব্যবহারের জন্য ছোট নাকফুল বা রিং পরেন। কিন্তু বিয়ের সাজে একটু বড় পাথরের নাকফুল পরে নিন। নাকফুলের রং বেছে নিন পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে। আর ভালো হয় বড় রিং বা নোলক পরলে। বিয়েবাড়ির সাজে নোলক বেশ মানানসই।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?