শনিবার, ৩০ মে ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৭ মে, ২০২০, ১১:৪৪:২৪

২৫০০ টাকার প্রণোদনা: এক একটি বিকাশ অ্যাকাউন্ট খুলতেই ৫০০ টাকা করে নিলেন চেয়ারম্যান!

 ২৫০০ টাকার প্রণোদনা: এক একটি বিকাশ অ্যাকাউন্ট খুলতেই ৫০০ টাকা করে নিলেন চেয়ারম্যান!

বগুড়া :বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় খেটে খাওয়া নিম্নবিত্ত মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঈদ উপহার পেতে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলা বাবদ ৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার উপজেলার ময়দানহাট্টা ইউনিয়নের দাড়িদহ বাজারের রাহী টেলিকমে এ ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। এদিকে, ঘটনার তদন্ত করতে গতকাল শনিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছেন।

বিষয়টির সঙ্গে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান এসএম রুপম জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় বাকশন (বম্বুপাড়া) গ্রামের মঞ্জুরি বেগম বলেন, ‘ইউপি চেয়ারম্যান এ দোকানে পাঠিয়ে বলেন, ৫শ টাকা দিয়ে ওই দোকান থেকে অ্যাকাউন্ট খুলে আসতে। অন্য দোকানে খুললে টাকা পাবেন না।’

ভিডিও চিত্রে দেখা গেছে, দাড়িদহ বাজারের রাহী টেলিকমের সামনে লম্বা লাইন। লাইনে দাঁড়ানো সবাই প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে আড়াই হাজার টাকা পাওয়ার তালিকাভুক্ত। এদের অনেকের বিকাশ নম্বর নেই। এজন্য রাহী টেলিকম ৫০০ টাকা নিয়ে তাদের বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলা সিমকার্ড বিক্রি করছে। এরকম কমপক্ষে ২০০ জনের কাছ থেকে তারা ৫০০ টাকা করে আদায় করেছে।

ময়দানহাট্টা ইউনিয়নের চাঁদনগর গ্রামের লাইলী বেগম, বাহাগুল পাড়া গ্রামের জরিনা বেগম, বেলী বেগম ও ফিরোজা বেগম বলেন, ‘আমাদের সবার কাছ থেকে ৫০০ টাকা করে নিয়ে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলা সিম কার্ড দেওয়া হয়েছে। ২০০ টাকা করে সিমকার্ড কিনতে চাইলেও তা দেওয়া হয়নি।’

বালুপাড়া গ্রামের মিনি বেগম বলেন, ‘টাকা নেই দেখে মুন্সির মাইনা দিতে পারছি না। তারপরও একজনের কাছ থেকে ধার করে এনে ৫০০ টাকা দিলাম।’

রাহী টেলিকমের স্বত্বাধিকারী এরফান আলী বলেন, ‘আমরা বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলাসহ প্রতিটি সিমকার্ড ২২০ টাকায় বিক্রি করেছি। বাকি ২৮০ টাকা রশিদমুলে ময়দানহাট্টা ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাক্স বাবদ আদায় করছে চেয়ারম্যানের লোকজন। সব মিলিয়ে ৫০০ টাকা করে নেওয়া হয়েছে। পরে অবশ্য ইউপি চেয়ারম্যানের পরামর্শে সবার টাকা বিকাশের মাধ্যমে ফেরত পাঠানো হয়েছে।’

এ প্রসঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান এসএম রুপম বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাক্স বকেয়া ছিল। কেউ দিতেও চায় না। পরিষদের আর্থিক অবস্থা ভালো না। এজন্য ইউপি সচিবের সঙ্গে পরামর্শ করে ট্যাক্স আদায়ের জন্য ডিডি এলজির রশিদ মূলে ২৮০ টাকা আদায় করা হয়েছে। তবে করোনাকালে ট্যাক্স আদায় করা ঠিক হয়নি। এটা আমার ভুল হয়েছে। পরে নিজের ভুল বুঝতে পেরে সবার বিকাশ অ্যাকাউন্টে ২৮০ টাকা করে ফেরত পাঠানো হয়েছে।’  

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, ‘ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর শনিবার সন্ধ্যায় রাহী টেলিকমের স্বত্বাধিকারী এরফান আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়। তিনি পুলিশকে জানান, প্রতিটি সিম ২২০ টাকায় বিক্রি করা হলেও বাকি ২৮০ টাকা ইউপি চেয়ারম্যান রুপম ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাক্স হিসেবে রশিদ মূলে আদায় করেছেন। প্রায় ১৬৫ জনের কাছ থেকে এই টাকা আদায় করা হয়। পরে বিষয়টি ভুল বুঝতে পেরে ১০০ জনের বিকাশ নম্বরে ওই টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে বলে এরফান জানিয়েছেন।’

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আলমগীর কবির বলেন, ‘বিষয়টি জানার পরই গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মুজাহিদ সরকারকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তদন্ত কমিটির প্রধান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মুজাহিদ সরকার বলেন, ‘ইতোমধ্যেই কমিটি তদন্ত কাজ শুরু করেছে। আগামীকাল সোমবার ঘটনাস্থলে গিয়ে সাক্ষ্যপ্রমাণ গ্রহণ করা হবে।’

এর আগে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া ৫০ লাখ পরিবারকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আড়াই হাজার টাকা উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?