শুক্রবার, ২২ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৪ মার্চ, ২০১৮, ১০:৩০:২৫

এলো ওয়ালটনের ‘ফেস আনলক’ সমৃদ্ধ ফোরজি ফোন

এলো ওয়ালটনের ‘ফেস আনলক’ সমৃদ্ধ ফোরজি ফোন

ঢাকা : বাজারে এলো ওয়ালটনের নতুন ফোরজি হ্যান্ডসেট। ‘প্রিমো এসসিক্স ইনফিনিটি’ মডেলের এই স্মার্টফোনে যুক্ত হয়েছে ফেস আনলক প্রযুক্তি। ফলে ফোন আনলকে গ্রাহক তার মুখাবয়ব ব্যবহার করতে পারবেন। এতে অনাকাক্সিক্ষত কারো হাতে পড়লেও ফোনের তথ্য থাকবে সুরক্ষিত। তাছাড়া, ফোনের সুরক্ষায় রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও।

এই ফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ইন-সেল এইচডি প্লাস নিউ জেনারেশন ১৮:৯ রেশিওর ফুল-ভিউ আইপিএস ডিসপ্লে। ৫.৫ ইঞ্চির পর্দার রেজ্যুলেশন ১৪৪০ বাই ৭২০ পিক্সেল। ফাইভ ফিংগার মাল্টিটাচ সুবিধাযুক্ত স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ২.৫ডি কার্ভড গ্লাসও। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার এবং ভিডিও দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ে মিলবে অনন্য অভিজ্ঞতা।

ওয়ালটন সেল্যুলার ফোন ডিভিশন (মার্কেটিং) প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, স্মার্টফোনটির মূল্য মাত্র ১৬,৯৯০ টাকা। আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফোনটি গত শুক্রবার থেকে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, ব্র্যান্ড এবং রিটেইল আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতাদের চাহিদা ও রুচির ভিন্নতা অনুযায়ী ফোনটি মিলছে সোনালি, নীল এবং ধূসর এই তিনটি ভিন্ন রঙে।

তিনি আরো জানান, বাজারে আসার আগেই স্মার্টফোনটির প্রি-বুকিং নেওয়া হয়েছিল। আগাম ফরমায়েসে ক্রেতাদের কাছ থেকে পাওয়া গেছে অভূতপূর্ব সাড়া। যারা প্রি-বুকিং দিয়েছেন ক্যাশব্যাকসহ আকর্ষণীয় উপহারের সঙ্গে তাদের কাছে স্মার্টফোন পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে, ‘এসসিক্স ইনফিনিটি’ অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ ওরিও ৮.০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত। ফলে এই ফোনের কার্যক্ষমতা ও গতি বেশি। এতে রয়েছে ৬৪-বিট সম্পন্ন ১.৩ গিগাহার্জ গতির কোয়াডকোর প্রসেসর। যা নিশ্চিত করবে এর উচ্চগতি। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-টি ৭২০। ৩ জিবি দ্রুতগতির এলপিডিডিআর৩ র্যা ম থাকায় বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, থ্রিডি গেমিং এবং দ্রুত ভিডিও লোড ও ল্যাগ-ফ্রি ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা পাওয়া যাবে। এর অভ্যন্তরীণ মেমোরি ৩২ গিগাবাইটের। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

নতুন এই স্মার্টফোনের পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত বিএসআই ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এফ ২.০ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এই ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে ৫পি লেন্স। এর পি.ডি.এ.এফ প্রযুক্তি ০.১ সেকেন্ডেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্যামেরার ফোকাস সেট করবে। ফলে ছবি হবে নিখুঁত, উজ্জ্বল ও জীবন্ত। গ্রাহকের রঙিন ও স্মরণীয় সব মুহূর্ত থাকবে ফ্রেমবন্দি।

আকর্ষণীয় সেলফির জন্য সামনে রয়েছে সফট এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত বিএসআই ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এফ ২.২ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এই ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে ৪পি লেন্স। পেছনের ক্যামেরায় ফুল এইচডি এবং সামনের ক্যামেরায় এইচডি ভিডিও ধারণ করা যাবে।

ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও রয়েছে ফেস বিউটি, ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, টাচ-ফোকাস, টাচ-শট, এইচডিআর, টাইম ল্যাপস, স্লো মোশন, প্যানোরমা, স্মার্ট সিন, নাইট মোড, ফিংগারপ্রিন্ট ক্যাপচার, জিও ট্যাগিং, কার্ড স্ক্যানার, জিফসহ অসংখ্য আকর্ষণীয় ফিচার।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ৩ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। যা দেবে দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপ। এতে রয়েছে রিভার্স চার্জিং সুবিধা। যা পাওয়ার ব্যাংকের কাজ করবে। ফলে জরুরি প্রয়োজনে ফোনটি থেকে অন্যান্য ডিভাইসেও চার্জ দেয়া যাবে।

কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ইউএসবি ২, ওয়্যারলেস ডিসপ্লে, ল্যান হটস্পট ও ওটিজি সুবিধা। অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিল্ট-ইন ডিটিএস মিউজিক সিস্টেমসহ ভার্চুয়াল সারাউন্ড সাউন্ড, স্পিন্ট স্ক্রিন, স্ক্রিন রেকর্ডার, রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও, ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক, নোটিফিকেশন লাইট ইত্যাদি।

৮.১ মিমি স্লিম ফোনটি বেশ হালকা। ব্যাটারিসহ এর ওজন মাত্র ১৪৬ গ্রাম। এতে থাকছে স্মার্ট আই প্রোকেটশন। যা দীর্ঘক্ষণ ব্যবহারে চোখের জন্য আরামদায়ক।

উল্লেখ্য, দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।

আরো জানতে যোগাযোগ করুন ওয়ালটনের কাস্টমার কেয়ারে। যেকোনো মোবাইল এবং ল্যান্ডফোন থেকে ০৯৬১২৩১৬২৬৭ নম্বরে অথবা মোবাইল থেকে ১৬২৬৭ নম্বরে কল করে। ভিজিট করতে পারেন ওয়ালটনের ওয়েবসাইট www.waltonbd.com।

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?