রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০১৮, ০১:০২:১৭

চালু হলো মস্তিষ্ক সদৃশ সুপার কম্পিউটার

চালু হলো মস্তিষ্ক সদৃশ সুপার কম্পিউটার

 এ মাসের প্রথম সপ্তাহে চালু হলো বিশ্বের প্রথম সুপার কম্পিউটার যা কাজ করবে মানুষের ব্রেইনের মতো করে। বিস্তারিত জানাচ্ছেনÑ মাজেদুল হক তানভীর

প্রথমবারের মতো নির্মিত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুপার কম্পিউটার। মস্তিষ্কের মতো কাজ করার উদ্দেশ্যেই এ কম্পিউটার তৈরি করা হয়েছে। মানুষের মস্তিষ্ক কীভাবে কাজ করে ও পারকিনসন রোগসহ মস্তিষ্কের বেশ কিছু রোগ নিয়ে গবেষণায় বিজ্ঞানীদের সহায়তা করবে এই সুপার কম্পিউটার।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই সুপার কম্পিউটার তৈরি করতে ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের ১০ বছরেরও বেশি সময় লেগেছে। প্রতি সেকেন্ডে ২০০ মিলিয়ন কাজ করতে পারবে এ কম্পিউটার। মানব মস্তিষ্কের মতো কাজ করার লক্ষ্যে এই সুপার কম্পিউটারটি তৈরিতে ব্যয় হয়েছে ১৯ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার। এই সুপার কম্পিউটারে রয়েছে ১০ লাখ প্রসেসর কোর। সুপার কম্পিউটারটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘স্পিন নেকার’।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই কম্পিউটারের ডিজাইন করা হয়। বিশ্বের অন্য যে কোনো মেশিনের তুলনায় এই সুপার কম্পিউটারটি সবচেয়ে বেশি নিউরন বা মস্তিষ্ক কোষের মডেল তৈরি করতে পারে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়, এই সুপার কম্পিউটারের প্রতিটি চিপে ১০০ মিলিয়ন পার্টস আছে, যা মানব মস্তিষ্কের মতো কাজ করার চেষ্টা করছে। এই সুপার কম্পিউটার তৈরির প্রজেক্টের বিজ্ঞানী প্রফেসর স্টিভ ফারবার বলেছেন, ‘এ কম্পিউটার কোনো কাজ করার আগে পুনরায় নিজেই চিন্তা করতে পারে। আমরা এমন একটি মেশিন আবিষ্কার করেছি, যা মানুষের মস্তিষ্কের মতোই কাজ করে। এটা আসলেই অন্যরকম একটা বিষয়।’

স্টিভ ফারবার আরও বলেন, ‘গতানুগতিক কম্পিউটারের চেয়ে এই সুপার কম্পিউটার পুরোপুরি আলাদা। এটা শুধু কম্পিউটার নয়, বরং অনেকটাই মানব মস্তিষ্কের মতো। এই সুপার কম্পিউটার এক পয়েন্ট থেকে আরেক পয়েন্টে শুধু তথ্য আদান-প্রদান করবে না, বরং মস্তিষ্কের মতো একই সময়ে হাজার হাজার ভিন্ন গন্তব্যে কোটি কোটি তথ্য পৌঁছে দেবে।’

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?