বুধবার, ১৭ জুলাই ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ০৫ জুন, ২০১৯, ০৯:৫৩:০৫

আপনার প্রাইভেসি রক্ষায় মজিলার নতুন পদক্ষেপ

আপনার প্রাইভেসি রক্ষায় মজিলার নতুন পদক্ষেপ

আপনার প্রাইভেসি রক্ষায় মজিলার নতুন পদক্ষেপ
অনলাইন ডেস্ক: ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য তথা প্রাইভেসি রক্ষা করতে নতুন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ওপেন সোর্স ব্রাউজার মজিলা। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, যেসব ওয়েবসাইট এবং বিজ্ঞাপনদাতা কোম্পানি ব্যবহারকারীর কম্পিউটার ট্র্যাক করতে পারে তাদের ব্লক করে দেওয়া হবে।

প্রাইভেসি রক্ষার নিশ্চয়তা দিতে কয়েক মাস ধরে প্রযুক্তি জগতে রীতিমতো ‘যুদ্ধ’ শুরু হয়েছে। ফেসবুক নানা ধরনের পদক্ষেপ ইতিমধ্যে নিয়েছে। ‍গুগলও শুরু করেছে। তালিকায় যোগ হয়েছে অ্যাপলের মতো প্রতিষ্ঠান। তাদের দেখাদেখি নিজেদের বিশ্বস্ততা বাড়াতে নতুন ঘোষণা দিল মজিলাও।

আপনি যখন বিভিন্ন ওয়েবসাইটে কোনো ব্রাউজার ব্যবহার করে প্রবেশ করেন, তখন কতগুলো কুকিজ ওই ব্রাউজারে স্টোর হয়ে যায়। এগুলো হল ছোট টেক্সট ফাইল।

দুই ধরনের কুকিজ সাধারণত স্টোর হয়। ফার্স্ট পার্টি কুকিজ ওয়েবসাইটের অপারেটর থেকে, এবং থার্ড পার্টি কুকিজ বিভিন্ন বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিষ্ঠান অথবা অ্যানালেটিক্যাল ফার্ম থেকে আসে।

মজিলা এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে, নিজস্ব ফিচারের মাধ্যমে তারা সেইসব কুকিজ ব্লক করবে, যেগুলো ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে।

বিভিন্ন ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপে আপনি যখন ক্লিক করেন, তখন ওই কুকিজগুলোর মাধ্যমে আপনার ফোনের অনেক তথ্য কোম্পানিগুলোর হাতে চলে যায়। আপনি কোথায় যাচ্ছেন, কোন ওয়েবসাইটে কত সময় থাকছেন, অনলাইনে আপনার পছন্দের বিষয় কী-সব তারা জেনে যায়। এগুলো বিশ্লেষণ করে, তারা আপনার মোবাইলে, ফেসবুকে কিংবা ইনস্টাগ্রামে বিজ্ঞাপন পাঠায়।

প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর এই কৌশল নিয়ে সারা বিশ্বে সমালোচনা চলছে। সবচেয়ে বেশি তোপের মুখে পড়তে হয় ফেসবুক এবং গুগলকে। তারা এখন ব্যবসার এই ধরন পাল্টানোর চেষ্টা করছে।

মজিলা জানিয়েছে, যারা ফায়ারফক্সের সর্বশেষ ভার্সন ব্যবহার করবেন, তারা প্রাইভেসির নতুন সুবিধা পাবেন। আপনি যদি ইতিমধ্যে নতুনভাবে ইনস্টল করে থাকেন, তবে সামনের কয়েক মাসের মধ্যে অটোমেটিক ব্লকিং শুরু হয়ে যাবে। নতুন এই ফিচারের কারণে কিছু কিছু ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

চাইলে ব্লকিংয়ের এই ফিচার আপনি বন্ধ করেও রাখতে পারবেন।

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?