শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০৯ জুলাই, ২০১৯, ০৭:০৭:৪৮

গুগলের নজরদারি থেকে মুক্তি পেতে করণীয়

গুগলের নজরদারি থেকে মুক্তি পেতে করণীয়

বিজ্ঞান প্রযুক্তি ডেস্ক: গ্রাহকের সব পদক্ষেপ পর্যবেক্ষণ করে থাকে গুগল। স্মার্টফোনের অ্যাপ দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি নজরদারি চালায়।

ম্যাপস, ভ্রমণের ওপর ভিত্তি করে সুপারিশ, রিয়েল-টাইম ট্রাফিক আপডেট, ফোন খুঁজে বের করা এবং নির্দিষ্ট বিজ্ঞাপন দেখানোর মতো ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা দিতে অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকের অবস্থান নজরদারি করে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি-- খবর ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড মিররের।

এই সেবাগুলো উপকারী হলেও গুগলের কাছে ডেটা থাকছে এটি অনেকের কাছেই স্বস্তির বিষয় নয়। আগে এই তথ্য মুছে ফেলার একমাত্র উপায় ছিলো অ্যাপ সেটিংস থেকে এগুলো ম্যানুয়ালি সরিয়ে ফেলা।

সম্প্রতি নির্দিষ্ট সময় পর পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে লোকেশন হিস্ট্রি মুছে ফেলার ফিচার চালু করেছে গুগল। গ্রাহক তার পছন্দ মতো তিন মাস বা ১৮ মাস পরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডেটা মুছে ফেলতে পারবেন।

অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ডিভাইসে ফিচারটি চালু করবেন যেভাবে--

গুগল ম্যাপস অ্যাপ চালু করুন।

ওপরে বাম দিকে মেনু আইকন থেকে ‘ইওর টাইমলাইন’ বাছাই করুন।

ওপরে ডান দিকে মোর অপশন ‘থেকে সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি’বাছাই করুন।

লোকেশন সেটিংসে এ যান।

‘অটোমেটিকালি ডিলিট লোকেশন হিস্ট্রি’ বাছাই করুন।

গুগল কতোদিন আপনার ওয়েব এবং অ্যাপ অ্যাক্টিভিটি মজুদ করতে পারবে সেটিও জানিয়ে দিতে পারবেন গ্রাহক। এর মাধ্যমে গ্রাহক কী কী ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ ব্যবহার করছেন তা পর্যবেক্ষণ করে থাকে গুগল।

এই ডেটা নিয়ে ম্যাপস সার্চ এবং অন্যান্য গুগল সেবায় আরও দ্রুত সার্চ ফলাফল দেখায় প্রতিষ্ঠানটি।

ওয়েব এবং অ্যাপ অ্যাক্টিভিটি তিন বা ১৮ মাস পরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে ফেলতে যা করণীয়-

জিমেইল অ্যাপ চালু করুন।

ওপরে বাম দিকে মেনু আইন থেকে সেটিংস বাছাই করুন।

অ্যাকাউন্ট বাছাই করে সেখান থেকে ‘ম্যানেজ ইওর গুগল অ্যাকাউন্টে’ প্রবেশ করুন।

একেবারে ওপরে ডেটা অ্যান্ড পার্সোনালাইজেশন বাছাই করুন।

অ্যাক্টিভিটি কন্ট্রোল থেকে ওয়েড অ্যান্ড অ্যাপ অ্যাক্টিভিটিতে যান।

ম্যানেজ অ্যাক্টিভিটি বাছাই করুন।

ওপরে ডান দিকে মোর আইকন থেকে ‘কিপ অ্যাক্টিভিটি ফর’ বাছাই করুন।

আপনি কতোদিন যাবৎ ডেটা রাখতে চাচ্ছেন তা জানিয়ে ‘নেক্সট’ বাটন চাপুন।

আপনার পছন্দ নিশ্চিত করতে সেইভ অপশন চাপুন।

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?