মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ০২:৩২:১৮

আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়া গেছে ‘লাশ নিয়ে দ্রুত চলে যা, নইলে বিপদে পড়বি’

আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়া গেছে ‘লাশ নিয়ে দ্রুত চলে যা, নইলে বিপদে পড়বি’

‘আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়া গেছে, তোরা লাশ নিয়ে দ্রুত চলে যা, না গেলে বিপদে পড়বি, পুলিশে ধরিয়ে দেব, আমাদের কেউ কিছু করতে পারবে না।’

সোমবার বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের শিশু সার্জারি ওয়ার্ডে এক রোগীর স্বজনদের চিকিৎসকরা এ হুমকি দেন। জানা যায়, আট মাস বয়সী শিশু তাসনিমের মাথায় অস্ত্রোপচারের পূর্বে ইনজেকশন পুশ করার পর শিশুটি মারা যায়।

শিশুর স্বজনরা এ ঘটনার জন্য চিকিৎসকদের দায়ী করেন। শিশু সার্জারি ওয়ার্ডের চিকিৎসক এবং শিক্ষানবিস (ইন্টার্ন) চিকিৎসকরা তখন ক্ষিপ্ত হয়ে রোগীর স্বজনদের সঙ্গে এ ধরনের আচরণ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

তাসনিম বাবুগঞ্জ উপজেলার সাত মাইল বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও পাংশা গ্রামের বাসিন্দা রেজাউর রহমান রুমনের একমাত্র কন্যা। রুমনের মামাতো ভাই আনোয়ার হোসেন সবুজ জানান, তাসনিমের মাথায় একটি ফোড়া হয়। কয়েক দিন আগে শেবাচিম হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয় তারা।

চিকিৎসকের নির্দেশ অনুযায়ী সোমবার তাসনিমকে নিয়ে শিশু সার্জারি বিভাগে যায়। দায়িত্বরত চিকিৎসক ফোড়ার অস্ত্রোপচার করার জন্য তাসনিমের শরীরে ইনজেকশন পুশ করে। এরপর নাক-মুখ থেকে রক্ত বের হয়ে তাসনিম নিস্তেজ হয়ে পড়ে। দ্রুত তাকে অস্ত্রোপচার কক্ষে নেয় চিকিৎসকরা।

আধা ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচার কক্ষে রেখে দেয়।

পরে তাসনিম মারা যাওয়ার কথা স্বীকার করে চিকিৎসকরা। ভুল চিকিৎসার অভিযোগ এনে পুশ করা ইনজেকশনের মোড়ক দেখতে চাইলে তাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ পুলিশ ডেকে এনে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয় চিকিৎসকরা।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

 

এই বিভাগের আরও খবর



আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?