বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭, ১১:০০:৪৯

তারেক রহমানের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগ-যুবলীগের হামলা: সাংবাদিকসহ আহত ২০, আটক ৬১

তারেক রহমানের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগ-যুবলীগের হামলা: সাংবাদিকসহ আহত ২০, আটক ৬১

বরিশাল: বরিশালের গৌরনদী পৌর সদরের পালরদী গ্রামে সোমবার বিকেলে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা। হামলায় সাংবাদিকসহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কমপক্ষে ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ৬১ জন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

গৌরনদী উপজেলা সংগঠনের আহত নেতারা গোপনে বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে উপজেলা ও পৌর ছাত্রদল ও যুবদলের উদ্যোগে সোমবার বিকেলে পালরদীস্থ ফায়ার সার্ভিস সংলগ্ন এক নেতার বাসভবনে কেককাটা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। বিকেল সাড়ে ৪টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়। বিকেল ৫টা দিকে গৌরনদী উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগ এবং যুবলীগের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিতভাবে এতে হামলা চালায়।

এ সময় হামলাকারীরা এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেছে বিএনপি, ছাত্রদল ও যুবদলের নেতাকর্মীদের। হামলায় সংবাদকর্মী ফারুক হোসেনও আহত হন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতের মধ্যে রয়েছেন বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলাম (৪২), দেলোয়ার হোসেন (৩৬), জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৮), যুবদল কর্মী আরিফ হোসেন (২৮), মো. আবু জাফর (৩২) সিকদার মমিন উদ্দিন (৩০)। এছাড়াও আহতদের মধ্যে রয়েছেন ছাত্রদল কর্মী সফিকুল ইসলাম (২৪), রিপন (২৬)।

সূত্র বলছে, আহতরা গ্রেপ্তার এড়াতে বিভিন্ন স্থানে পালিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে ৬১ জন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতদের মধ্যে রয়েছেন- উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক কাজী সরোয়ার হোসেন, আমিনুল ইসলাম, পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক মো. মাহফুজ মোল্লা, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির সদস্য জিএম সুনান, মাসুম বেপারী, সবুজ হাওলাদার, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক গোলাম মোর্শেদ মাসুদ, মাসুম হাওলাদার, আল আমিন হাওলাদার।

এদিকে, হামলার অভিযোগ অস্বীকার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জোবায়ের ইসলাম বলেন, হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগের কোনও নেতাকর্মী জড়িত নয়। বিএনপির আভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে।

পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন হাওলাদার বলেন, যুবলীগ নেতাকর্মীরা সন্ত্রাস নৈরাজ্য বিরোধী রাজনীতিতে বিশ্বাসী। বিএনপি ও যুবদল ছাত্রদল নেতাকর্মীরা প্রতিপক্ষের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে। এতে যুবলীগের কেউ জড়িত নেই।

 

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?