শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ২১ মার্চ, ২০১৮, ০৮:০৬:৪৫

‘আমাকেও সেক্রিফাইস করতে বলা হয়েছিল’

‘আমাকেও সেক্রিফাইস করতে বলা হয়েছিল’

শুধু শোবিজ নয়, প্রতিটি পেশাতেই ভালো-মন্দ থাকে। নিজেকে যদি সৎ রাখা যায় তাহলে কারো সঙ্গে সেক্রিফাইস করতে হয় না বলে আমি মনে করি-কথাগুলো বললেন এই সময়ের মডেল-অভিনেত্রী হিমি। তিনি আরো বলেন, আমাকেও সেক্রিফাইস করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু আমি সেটি করিনি। কারণ আমার পেশার প্রতি ভালোবাসা এবং বিশ্বাস আছে। অবশ্য এই সেক্রিফাইস না করার কারণে আমাকে দুটি ছবির কাজ ছাড়তে হয়েছে।

হিমিকে কি এই কারণে চলচ্চিত্রে দেখা যাচ্ছে না? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বিষয়টি সেই রকম নয়। ছেড়ে দেওয়া ছবির বাইরে আমি অন্য যে ছবিগুলোর প্রস্তাব পেয়েছি সেগুলোর গল্প আমার সঙ্গে যায় না। নতুন চলচ্চিত্রে না দেখার বড় কারণ হলো মনের মতো গল্প ও চরিত্র না পাওয়া। এই মডেল-অভিনেত্রীর ‘হঠাৎ দেখা’ শীর্ষক একটি ছবির মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়। ছবিটি দুই বাংলাতেই মুক্তি পায়। এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য হিমি বোদ্ধামহলে দারুণ প্রশংসিত হন। বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয় ‘হঠাৎ দেখা’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন রেশমী মিত্র (ভারত) এবং সাহাদাত হোসেন (বাংলাদেশ)। হিমি বর্তমানে ছোট পর্দার কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সম্প্রতি তিনি ওয়ালিদ হাসানের ‘অন্ধকারের অন্তরালে’ শীর্ষক একটি সিরিয়ালের কাজ শেষ করেছেন। চ্যানেল আইতে প্রচার হচ্ছে তার অভিনীত ‘ভালোবাসার যৌথ খামার’ শিরোনামের একটি ধারাবাহিক নাটক। তার হাতে রয়েছে গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘মন পবনের নাও’, মুরাদ পারভেজের ‘স্মৃতির আলপনা আঁকি’ শিরোনামের দুটি ধারাবাহিক। হিমি জানান মাহফুজুর রহমানের লেখা উপন্যাস নিয়ে ‘স্মৃতির আলপনা আঁকি’ নির্মাণ হচ্ছে। এটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। এই ধারাবাহিকে একই সঙ্গে তিনটি চরিত্রে হিমিকে দেখা যাবে। এদিকে নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিমের সঙ্গে ‘মন পবনের নাও’ ধারাবাহিকে কাজ করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মিডিয়াতে কাজ করার শুরু থেকেই আমার স্বপ্ন ছিল সেলিম ভাইয়ের নির্দেশনায় কাজ করার। অবশেষে সেই স্বপ্ন পূরণ হলো। এটিতে আমার চরিত্রটি অনেক চ্যালেঞ্জিং। আমার অভিনয় জীবনের চলার পথে গিয়াস উদ্দিন সেলিম ভাইয়ের এই নাটকটি অনেক কাজে লাগবে বলে মনে করছি। টিভি নাটকের বাইরে শর্টফিল্মেও কাজ করছেন হিমি। আসছে ২২শে মার্চ মুক্তি পাবে এ অভিনেত্রীর ‘বিবেকের কাছে প্রশ্ন’ শিরোনামের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি। এতে তিনি জুটি বেঁধেছেন মডেল-অভিনেতা শিপনের সঙ্গে। সোমেশ্বর অলির কনসেপ্ট-চিত্রনাট্যে এটি নির্মাণ করেছেন আল-আমিন ও রাসেল আজম। হিমির ভাষ্য, এটির গল্প ভিনদেশি সংস্কৃতির আগ্রাসনের বিরুদ্ধে। ভিনদেশি সংস্কৃতির কারণে আমাদের বাংলা ভাষা অবহেলিত হচ্ছে। এ ধরনের কাজ খুব একটা পাওয়া যায় না। কয়েক মিনিটের একটা ছবির জন্য আমরা কয়েকদিন কাজ করেছি। ছবিটি দর্শকের চিন্তার রাজ্যে একটু হলেও নাড়া দেবে। আলাপনে হিমির সঙ্গে তার ক্যারিয়ারের পরিকল্পনা নিয়েও কথা হয়। আগামীতে চলচ্চিত্র নাকি ছোট পর্দায় নিজেকে নিয়মিত দেখতে চান? এ প্রশ্নে হিমির সোজা সাপ্টা উত্তর- নাটকে অভিনয় করতে আমার ভালো লাগে। ছোট পর্দায় নিয়মিত অভিনয় করার ইচ্ছে আছে। এরমধ্যে ভালো গল্প ও চরিত্র পেলে চলচ্চিত্রেও কাজ করবো। হিমির অভিনয়ের বড় ভক্ত হলেন তার মা। সবার চেয়ে বেশি সমালোচনাও মা করেন বলে জানান হিমি। মায়ের আলোচনা-সমালোচনার কারণে অভিনয়ের সময় চিন্তা-ভাবনাও অনেক বেশি থাকে বলে মন্তব্য এ অভিনেত্রীর। এদিকে আসছে ২৫শে মার্চ হিমি থাইলান্ডে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। তবে কোনো নাটক-টেলিছবির কাজের জন্য নয়। পরিবারের সবাই কয়েকদিন সেখানে ঘুরে বেড়ানোর উদ্দ্যেশ্যেই এই সফর। সেখান থেকে দেশে ফিরেই আবার কাজ শুরু করবেন বলে জানান এই পর্দাকন্যা।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

 

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?