সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ০৩:১১:১২

মহারাষ্ট্র পুলিশের নজরে ফারহান-প্রিয়াঙ্কা! (ভিডিও)

মহারাষ্ট্র পুলিশের নজরে ফারহান-প্রিয়াঙ্কা! (ভিডিও)

বিনোদন ডেস্ক : এবার মহারাষ্ট্র পুলিশের নজরে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও ফারহান আখতার। পুলিশের নজরে আসার কারণ ‘দ্যা স্কাই ইজ পিঙ্ক’-এর ট্রেলার। একেবারে হাতেনাতে ধরা পড়ে গিয়েছেন স্বীকার করে নিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। জানেন কী ঘটেছে?

গত ১০ সেপ্টেম্বর প্রকাশ্যে আনা হয়েছে ‘দ্যা স্কাই ইজ পিঙ্ক’ এর ট্রেলার। যেখানে দেখানো হয়েছে ফারহান আখতার ও প্রিয়াঙ্কার অনস্ক্রিন কন্যা আয়েশাকে দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত। ট্রেলারে প্রিয়াঙ্কাকে বলতে দেখা গেছে “একবার আয়েশা ঠিক হো জায়ে, ফির সাত মে ব্যাংক লুটেঙ্গে।” আর ট্রেলারের এই ডায়ালগই নজরে পড়েছে মহারাষ্ট্র পুলিশের।

টুইট করে ছবির নির্মাতাদের মনে করিয়ে দেয়া হয়েছে ব্যাংক ডাকাতির ফল কী হতে পারে। ছবির ডায়ালগের উপরে মহারাষ্ট্র পুলিশের পক্ষ থেকে টুইটে লেখা হয়েছে “ভারতীর দণ্ডবিধির ৩৯৩ ধারা অনুযায়ী সাত বছরের জেল।”

মহারাষ্ট্র পুলিশের টুইট পাল্টা রিটুইট করে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া লিখেছেন, “একেবারে হাতে নাতে ধরা পড়ে গেলাম প্ল্যান B সক্রিয় করার সময় এসেছে ফারহান।” প্রিয়াঙ্কা এ কথার পর চুপ থাকেননি ফারহান আখতারও। মজা করে তিনি লিখেছেন, “ক্যামেরার সামনে আর কখনও এমন পরিকল্পনা করবো না।” যদিও এই পুরো ঘটনাটিই ঘটেছে একেবারে মজার ছলে।

মঙ্গলবারই প্রকাশ্যে আনা ‘দ্যা স্কাই ইজ পিঙ্ক’ এর ট্রলার। পরিচালক সোনালি বোসের এই সিনেমার ট্রেলার মুক্তি পাওয়ার পর পরই কয়েক লাখ ভিউ হয়েছে ইউটিউবে।

বাবা-মায়ের ২৫ বছরের প্রেমের সম্পর্ক এবং তাদের জীবনের টানাপোড়েনকে সুন্দরভাবে দর্শকদের সামনে তুলে ধরেছেন তাদের টিনেজার কন্যা। সিনেমায় সেই চরিত্রেই দেখা যাচ্ছে বলিউডের কাশ্মীরি-কন্যাকে।

প্রসঙ্গত, এই সিনেমার বেশ কয়েকটি দৃশ্যে ফারহান আখতার এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ঘনিষ্ঠ রসায়নকে তুলে ধরা হয়েছে সুন্দরভাবে। আগামী ১১ অক্টোবর মুক্তি পাবে সোনালি বোসের এই সিনেমা। মুক্তির আগেই প্রিয়াঙ্কা এবং ফারহানের অনস্ক্রিন রসায়ন নিয়ে উচ্ছ্বসিত তাদের ভক্তরা। বিয়ের পর ‘দ্য স্কাই ইস পিঙ্ক’ দিয়ে বলিউডে কামব্যাক করলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস। সূত্র: জি-নিউজ

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?