শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৩ নভেম্বর, ২০১৯, ০২:৩৬:৪৬

ছাত্রলীগের ৮ নেতাকে শাবি থেকে বহিষ্কার

ছাত্রলীগের ৮ নেতাকে শাবি থেকে বহিষ্কার

সিলেট : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) ছাত্রলীগ নেতা রাজীব সরকারের ওপর হামলার ঘটনায় সংগঠনটির সাত নেতাকর্মীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করেছে প্রশাসন।

এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসানের ওপর হামলার ঘটনায় আরেক ছাত্রলীগ নেতাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার সিন্ডিকেটের ২১৪তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এই সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। শৃঙ্খলা বোর্ডের সুপারিশে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মস্তাবুর রহমান।
একাধিক সিন্ডিকেট সদস্য সূত্রে জানা যায়, বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী ও বিভাগ ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাজীব সরকারের ওপর হামলার ঘটনায় সাত শিক্ষার্থীকে এক সেমিস্টার বহিষ্কার ও বিভিন্ন পরিমাণ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে জরিমানা পরিশোধ না করলে আরও এক সেমিস্টার বহিষ্কার করার সুপারিশও করা হয়েছে।

অন্যদিকে এর পরবর্তী সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো ধরনের মারামারি কিংবা সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এরা সবাই শাখা ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এ ছাড়া এ ঘটনায় গ্রেফতার শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মুস্তাকিম আহমেদ মুস্তাকের বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। অনুমতি ছাড়া তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না সিন্ডিকেটে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
এক সেমিস্টার বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলেন- লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী ও শাবি ছাত্রলীগ সদস্য এমএ আরিফ (১০,০০০ টাকা জরিমানা), একই বিভাগের শিক্ষার্থী ও শাবি ছাত্রলীগের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের যুগ্ম সম্পাদক আবদুল বারী সজীব (৮,০০০ টাকা জরিমানা), শাবি ছাত্রলীগের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের যুগ্ম সম্পাদক সুমন মিয়া (৩,০০০ টাকা জরিমানা), ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগকর্মী মো. রিশাদ ঠাকুর (৮,০০০ টাকা জরিমানা), ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী ও শাবি শাখা ছাত্রলীগের অ্যাপ্লায়েড সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের সহসভাপতি মাহবুব আল আমিন শোভন (৭,০০০ টাকা জরিমানা), বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী ও বিভাগ ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক কাওসার আহমেদ সোহাগ (৫,০০০ টাকা জরিমানা), কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থী ও বিভাগ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আহমদ রানা (৬,০০০ টাকা জরিমানা)।

এ ছাড়া ২০১৮ সালের ২৫ মার্চ শাবি ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান নাঈমকে ছুরিকাঘাত করার ঘটনায় সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী ও শাবি ছাত্রলীগের গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রশিদ রাসেলকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয় সিন্ডিকেটে।

উল্লেখ্য, গত ২৩ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে ছাত্রলীগের বাংলা বিভাগ কমিটির যুগ্ম সম্পাদক রাজীব সরকারের ওপর ধারালো অস্ত্র ও জিআই পাইপ দিয়ে হামলা চালায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

পরে রাজীবকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। রাজীবের মাথা ও পিঠে ৭০টির মতো সেলাই দিতে হয় তখন। হামলার পর গত ২৫ মার্চ জালালাবাদ থানায় রেজিস্ট্রার ইশফাকুল হোসেন বাদী হয়ে বহিষ্কৃতদের আসামি করে একটি মামলা করেন।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?