সোমবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:২২:৩৭

দৃষ্টিহীনরা ‘দেখবেন’ মোনালিসাকে

দৃষ্টিহীনরা ‘দেখবেন’ মোনালিসাকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : এতোদিন দৃষ্টিহীনদের গ্যালারিতে গিয়ে নামকরা সব শিল্পকর্ম দেখার উপায় ছিলো না। কিন্তু এবার আগের সে দূরত্ব কিছুটা হলেও কমবে। এখন থেকে দৃষ্টিহীনরাও মোনালিসার মতো শিল্পকর্ম উপভোগ করতে পারবেন। যারা দৃষ্টি প্রতিবন্ধী তাদের জন্য অভিজ্ঞতা ভিন্ন এবং চমৎকার।

প্রতিবছর প্রায় ৬০ লাখ মানুষ মোনালিসার ছবি দেখে। আর এবার থেকে এ সংখ্যার সাথে যোগ হবে দৃষ্টিহীনরা।

দৃষ্টিহীনদের মধ্যে এমনই একজনের সাথে কথা হয় বিবিসির। যিনি এসেছেন মোনালিসার বিখ্যাত শিল্পকর্ম উপভোগ করতে। তিনি বলেন, শিল্পকলা যাদুঘরে সাধারণ আপনি দেখবেন দেয়ালে টাঙানো শিল্পীদের চিত্রকর্ম অথবা কাঁচের পেছনে কোনো শিল্পকর্ম। কাজেই একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর জন্য যাদুঘর ঘুরে দেখার অর্থ হলো শিল্পকর্ম দেখার সুযোগ না পাওয়া। যাদুঘরে শিল্পকর্মের বর্ণনা দেবার জন্য কিছুই থাকে না। ব্রেইল থাকে না, অডিওর মাধ্যমে কিছু বর্ণনা করা থাকে না। কিছুই থাকে না।

এখন এর সমাধান তৈরি করা হয়েছে। থ্রিডিফটোওয়ার্কস নামে একটি সংস্থা খুবই বিখ্যাত কিছু শিল্পকর্মের। যা দৃষ্টিহীনরা সত্যি খুব উপভোগ করে।

যেসব স্পর্শচিত্র বর্তমানে তৈরি হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম মোনালিসার চিত্র। এছাড়া ভ্যান গগের ছবি ড. গ্যাচেট এবং জর্জ ওয়াশিংটনের ডেলাওয়ার নদী পার হবার চিত্র বিখ্যাত এবং জনপ্রিয়।

অপর এক দৃষ্টিহীন ব্যক্তি জানান, এ উদ্যোগের ফলে ছবিটার সঙ্গে একটা সম্পর্ক অনুভব হয় এছাড়া ছবিটা উপভোগ করা যায়। সাধারণত একটা যাদুঘরে দর্শক যা করে এটা হবে তার থেকে আলাদা। যাদুঘরে মানুষ শুধু দেয়ালে ঝোলানো চিত্রকর্মের দিকে তাকিয়ে থাকে। দারুণ। আমি সবসময় এটা দেখতে চেয়েছিলাম। খুব সুন্দর অভিজ্ঞতা। আপনি কিন্তু ছবি স্পর্শ করেন না। আমরা যেভাবে বড় হয়েছি আমরা কখনো ছবি ছুঁইনি। কিন্তু একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর অনুভবের জন্য স্পর্শ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

(শব্দে বর্ণনা)- নৌকার পেছনের অংশে যেনো ঝুঁকে আছি। আর প্যাডেল দিয়ে পথনির্দেশ করছি। আমি দেখতে না পেলেও শিল্প আমি ভালোবাসি। শিল্পের প্রতি ভালোবাসা বদলায় না। কিন্তু যে ধরনের শিল্পকর্ম আমি সংগ্রহ করি তা বদলে গেছে।

এখন আমি এমন ছবি সংগ্রহ করি যা স্পর্শ করা যায় কারণ এ ধরনের ছবি আমি বেশি উপভোগ করতে পারি, যোগ করেন তিনি।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?