বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০২ জুলাই, ২০১৮, ০৮:০৪:৩৩

কখন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসবেন?

কখন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক : সম্পর্ক গড়তে দুটি পক্ষ লাগে। জোড়া লাগানোর ক্ষেত্রে দুই পক্ষেরই মিল থাকা লাগে। কিন্তু ভেঙ্গে যাওয়ার ক্ষেত্রে একটি পক্ষের অমিলই যথেষ্ট। সম্পর্ক ভাঙলে খারাপ লাগাটা স্বাভাবিক। যতই চেষ্টা করেন না কেন সম্পর্কটা ঠিক রাখতে তুবুও সঙ্গীর আচার-ব্যবহারে একসময় ভাঙতেই হয়। জীবনের গুরুত্বপূর্ণ কোনও মানুষকে বাদ দিয়ে দেওয়া আমাদের কাছে ‘হারিয়ে ফেলা’, আমাদের জীবনের খুবই খারাপ অভিজ্ঞতা হলেও যত গভীর সম্পর্কই হোক না কেন নিজের ক্ষতি হচ্ছে বুঝতে পারলে আপনার সরে আসাই উচিত হবে। যেসব লক্ষণে বুঝবেন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসা উচিৎ-

১- যখন আপনার সব সময় মনে হবে আপনাকে জেরা করা হচ্ছে
সম্পর্কে একটা সময় আসে যখন পরস্পরের প্রতি সন্দেহ দানা বাঁধতে থাকে এবং সম্পর্ক ক্রমশ তিক্ত থেকে তিক্ততর হয়ে ওঠে। এমন একটা পরিস্থিতি আসে যখন পরস্পরকে দোষারোপ করাই সম্পর্কের মূল উদ্দেশ্যে পরিণত হয়। পরস্পরের প্রতি ভালবাসা ছিটেফোঁটাও বাকী থাকে না। যেটুকু বাকী পরে থাকে তা হল মোহ। এই সময় আপনাদের পরস্পরের থেকে দূরে সরে আসাই উচিত কাজ।
আরো পড়ুন:- বিশ্বকাপে ব্রাজিল-মেক্সিকো পঞ্চম লড়াই আজ

২-ছলনা একটা সাধারণ ব্যপারে পরিণত হয়
যেকোনো সম্পর্কেই মিথ্যের আশ্রয় নেওয়া উচিত নয়। কারণ একটা মিথ্যের থেকেই জন্ম নেয় আরও হাজারটা মিথ্যে। একটা সম্পর্কের মাঝে মিথ্যের স্তূপ জমা হতে থাকলে আপনার কিন্তু নিজেকে প্রশ্ন করা উচিত- পরস্পরকে বোকা বানানো উচিত নাকি পরস্পরকে প্রাপ্য সন্মানটুকু দিয়ে দূরত্ব বজায় রাখা উচিত?

৩-আপনি অসম্মানিত বোধ করবেন
পরস্পরকে সন্মান দেওয়ার অর্থ হল একটা সৎ এবং ভাল সম্পর্কের লক্ষণ। যেকোনো ধরণের সম্পর্কের ক্ষেত্রেই পরস্পরকে উপযুক্ত সম্মান দেওয়া অবশ্যই উচিত। তাই কোনও সম্পর্কে যদি পারস্পরিক সন্মানটুকু না থাকে তবে কিন্তু আপনার সম্পর্কটা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যপারে দ্বিতীয়বার ভেবে দেখা উচিত হবে।

৪-আপনাদের মতামতের মিল হবে না
মানুষের বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের ভাবনা চিন্তারও পরিবর্তন হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এর থেকে সমস্যা সৃষ্টি হলেও পরে তা মিটে যায়। আবার সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা ক্রমাগত বাড়তে থাকে। কিছু সমস্যা আমাদের মনে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করে আমরা জীবনের থেকে কী চাই এবং আমরা একটা সম্পর্কের থেকে কী চাই- এই দুইয়ের মধ্যে। সুতরাং পরিস্থিতি এমন হলে আপনার কিন্তু ভেবে দেখা উচিত সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি বদলানো সম্ভব নাকি ব্যপারটা তেল আর জল কোনদিন মেশে না জাতীয়।

৫-উদ্দেশ্যসাধনের জন্য আপনাকে ব্যবহার করা হলে
কোনও কোনও ক্ষেত্রে দম্পতিরা পরস্পরকে নিজেদের কোনও বিশেষ উদ্দেশ্যসাধনের জন্য ব্যবহার করে থাকে। আপনার সঙ্গেও এমন ঘটে থাকলে আপনার ভেবে দেখা উচিত আপনাদের সম্পর্কটা ঠিক কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে। এইভাবে সম্পর্কে সমস্যা জিইয়ে না রেখে পরস্পরের থেকে বিভিন্ন হয়ে যাওয়াই বোধ হয় উভয়ের জন্যই মঙ্গল হবে।

যতই খারাপ লাগুক, আপনার যদি মনে হয় আপনার সম্পর্কের মধ্যে উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো প্রভাব ফেলেছে তবে অবশ্যই আপনার সম্পর্কটা আর এগিয়ে না নিয়ে যাওয়াই উচিত হবে। যতই হোক, একজনের ইচ্ছেতে তো আর একটা সম্পর্ক বাঁচিয়ে রাখা যায় না!

সূত্র : এনডিটিভি



আজকের প্রশ্ন