শুক্রবার, ১৯ জুলাই ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ১১ মে, ২০১৯, ০৮:০২:০৯

তালতলীতে গরু কিনতে গিয়ে হামলার শিকার, টাকা ছিনতাই

তালতলীতে গরু কিনতে গিয়ে হামলার শিকার, টাকা ছিনতাই

বরগুনা প্রতিনিধি : বরগুনার তালতলী উপজেলার পশ্চিম বাদুরগাছা গ্রামের গরু ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী সিকদারকে মারধর করে ৯৫ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত তৈয়ব আলীকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। ঘটনা ঘটেছে শনিবার সকালে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার বাদুরগাছা গ্রামের গরু ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী সিকদার শনিবার সকালে একই গ্রামের খালেক হাওলাদারের বাড়ীতে দুইটি গরু কিনতে যায়। গরুর মালিক খালেক হাওলাদার ওই গরু দুটির দাম হাকেন ৬০ হাজার টাকা। গরু ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী ওই গরুর দাম বলেন ৪৫ হাজার টাকা।

ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী গরুর দাম কম বলায় খালেক হাওলাদারের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় ক্ষিপ্ত হয়ে খালেক হাওলাদার, তার ছেলে মজিবর হাওলাদার, বেল্লাল হাওলাদার ও ভাইয়ের ছেলে খবির হাওলাদার ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী সিকদারকে বেধরক মারধর করেন। পরে ওই ব্যবসায়ীর পকেটে থাকা ৯৫ হাজার টাকা তারা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তৈয়ব আলীকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার আলহাজ্ব  মোঃ হারুন অর রশিদ বলেন, আহত তৈয়ব আলী সিকদারের বাম চোখের নিচে কাটা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে  ফোলা জখমের চিহৃ রয়েছে।

আহত তৈয়ব আলী সিকদার বলেন, গরুর দাম কম বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে খালেক হাওলাদার তার ছেলে মজিবর, বেল্লাল ও ভাইয়ের ছেলে খবির হাওলাদার আমাকে মারধর করে আমার সাথে থাকা ৯৫ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়েছে।

খালেক হাওলাদার মারধর ও টাকা ছিনতাইয়ের কথা অস্বীকার করে বলেন, তৈয়ব আলী সিকদার এলাকার লোকজন নিয়ে আমাদের মারধর করেছে।

তালতলী থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায় বলেন, এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য গত ৮ মে বুধবার বিকেলে প্রধান শিক্ষক শাহ আলম কবির শিক্ষক কর্মচারীদের দীর্ঘ ১৬ মাস পর্যন্ত বকেয়া বেতন ভাতার বিল আমতলী সোনালী ব্যাংকে জমা দিতে গেলে পূর্বে ওৎপেতে থাকা ঐ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী, অফিস সহকারী ও ভোকেশনাল শিক্ষক লাঠীছোটা ও ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প দিয়ে এলোপাতারী পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে শাহ আলম কবিরকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ৫জনকে আসামী করে ঘটনার দিন রাতে আমতলী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-০৬। এ ঘটনায় কোন প্রকার সংবাদ প্রকাশ করলে রেজাউল করিম মেরে ফেলা হবে হুমকি প্রদান করেন সহকারী শিক্ষক মো. সফিকুর রহমান।

স্কুলের  সাবেক এডহক কমিটি  প্রধান শিক্ষক শাহ আলম কবিরকে কোন কারন ছাড়াই বিনা নোটিশে চাকুরীচ্যুৎ করেন। শাহ আলম কবির উক্ত বরখাস্তের বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। মহামান্য হাইকোর্ট ম্যানেজিং কমিটির আদেশকে অবৈধ ঘোষনা করে শাহ আলম কবিরকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে বহাল রেখে রায় প্রদান করেন।

উক্ত রায়ের বিরুদ্ধে ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি জাকিয়া এলিচ মহামান্য সুপ্রিম কোর্টে লিভ টু আপিল করেন। মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট লিভ টু আপিলকে খারিজ করে দিলে শাহ আলম কবির প্রধান শিক্ষক পদে বহাল থাকেন। প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর জনিত জটিলতার কারনে শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা দীর্ঘ   ১৬ মাস পর্যন্ত ব্যাংক থেকে তুলতে পারেনি।

বর্তমান কমিটির মেয়াদ ১৩ই ফেব্রুয়ারী ২০১৯ শেষ হয়ে গেলে প্রধান শিক্ষক ও জেলা শিক্ষা অফিসারের যৌথ স্বাক্ষরে বিল উত্তোলনের বিষয়ে মাউশি’র সহকারী পরিচালক আদেশ প্রদান করেন। শাহ আলম কবির ব্যাংকে জমা দিতে গেলে সাবেক সভাপতি জাকিয়া এলিচ এর পক্ষভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীরা এই হামলা চালায়।

 

এই বিভাগের আরও খবর

  ৫ দিনের রিমান্ডে রিশান ফরাজী

  ডেঙ্গুসহ অন্যান্য পরীক্ষায় ক্লিনিক-ডায়াগনষ্টিকের গলা কাটা ব্যবসা

  ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ১১৫ সে.মি উপরে, পানিবন্দি ৭ লাখ মানুষ

  চুয়াডাঙ্গায় ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

  ১৭ দিনের সফরে আজ যুক্তরাজ্য যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

  অবিবাহিত মেয়েরা মোবাইল ব্যবহার করতে পারবে না!

  তুরস্কে বাস উল্টে বাংলাদেশিসহ নিহত ১৭

  খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে: ফখরুল

  খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বরিশালে সমাবেশ

  ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটলে জালিম সরকার টিকবে না : রুমিন ফারহানা

  ‘অবশ্যই আন্দোলন আসছে, জেগে উঠুন, প্রস্তুতি নিন’



আজকের প্রশ্ন