মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০১৯, ০১:০১:৪৮

সিরিয়ার গোলানে ‘ট্রাম্প সিটি’ বানাচ্ছে ইসরাইল

সিরিয়ার গোলানে ‘ট্রাম্প সিটি’ বানাচ্ছে ইসরাইল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিরিয়া থেকে দখল করা গোলান মালভূমিতে ইহুদি বসতি গড়ছে ইসরাইল। ইহুদিবাদী ইসরাইল গোলানে যে নতুন শহর গড়ছে তার নাম দিচ্ছে ট্রাম্প সিটি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি ইহুদিবাদী দেশটির কৃতজ্ঞতা প্রকাশের অংশ হিসেবেই এ নামকরণ করা হচ্ছে। খবর ইসরাইলের সংবাদমাধ্যম ওয়াইনেট নিউজের।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধের সময় আন্তর্জাতিক আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সিরিয়ার ওই মালভূমিটি দখল করে নেয় ইসরাইল।

এ বছরের মার্চে গোলান মালভূমি ইসরাইলের সার্বভৌমত্ব হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এ সময় ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্র জেনেছে গোলান ইসরাইলের সার্বভৌম। আর এ কারণেই গোলান মালভূমিতে ইসরাইলের সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দেয়া উচিত যুক্তরাষ্ট্রের।

৫২ বছর পর গোলান মালভূমিতে ইসরাইলের সার্বভৌমত্বে স্বীকৃতি দেয়ার সময় এটিই।

মালভূমিতে বর্তমানে ২০ হাজার অবৈধ দখলদার বসবাস করছেন। কাজেই এই দখলদারিত্ব কখনই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় স্বীকৃতি দিতে পারে না।

এদিকে ট্রাম্পের এমন ঘোষণায় বিশ্বজুড়ে সমালোচনা ও নিন্দা জানানো হয়েছে। এর মধ্যে জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, তুরস্ক, ফ্রান্সসহ অনেক দেশ রয়েছে।

১৯৬৭ সালে আরবদের সঙ্গে ছয় দিনের যুদ্ধে সিরিয়ার গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরাইল। সেই সময় ইহুদিবাদী বাহিনী ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীর ও গাজা উপত্যকারও নিয়ন্ত্রণ নেয়।

পরে ১৯৮১ সালে গোলান মালভূমিকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজ ভূখণ্ড বলে ঘোষণা দেয়। কিন্তু আন্তর্জাতিক মহল কখনই ইসরাইলের এ দাবির স্বীকৃতি দেয়নি।

সর্বশেষ ২০১৮ সালের ১৬ নভেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে গোলান মালভূমির মালিকানাসংক্রান্ত এক ভোটাভুটি হয়।

সেখানে উপস্থিত ১৫৩ দেশের মধ্যে ১৫১ দেশ এ ভূখণ্ডের মালিকানা সিরিয়ার বলে স্বীকৃতি দেয়। শুধু আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইল প্রস্তাবটির বিপক্ষে অবস্থান নেয়।

 

এই বিভাগের আরও খবর



আজকের প্রশ্ন