বুধবার, ২৩ অক্টোবর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০১৯, ০৪:২১:০৬

কোনো কথাই বললেন না রোডস

কোনো কথাই বললেন না রোডস

স্পোর্টস ডেস্ক : মেয়াদের এক বছর আগেই চুক্তি বাতিল হয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের। মূলত বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সেমিফাইনালে উঠতে না পারায় বিসিবি তার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সেটা আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে। ফলে এক প্রকার নীরবেই বাংলাদেশ ছেড়ে চলে গেলেন এই ইংলিশ কোচ। এদিন রাতে ঢাকা ছাড়ার আগে মিডিয়ার সঙ্গে কোনো কথাই বলেননি তিনি।

বাংলাদেশ দলের সঙ্গে আরো বছরখানেক থাকার কথা ছিল রোডসের, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত। কিন্তু ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপে দলের ব্যর্থতার পর সমঝোতায় তার চুক্তি বাতিল করে বিসিবি।

তার বিদায় নিয়ে নাটক হয়েছে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে। পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশ হেরে বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পরদিনই দলের সঙ্গে দেশে ফেরেন রোডস। পরদিন বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানান, সমঝোতার ভিত্তিতে দুই পক্ষ চুক্তি বাতিল করবে। দুই দিন পর গত বুধবার বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের মুখে ছিল ভিন্ন কথা। রোডস চাইলে নাকি আরো কিছুদিন থাকতে পারবেন। কিন্তু এর ২৪ ঘণ্টা না যেতেই আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে লন্ডনের ফ্লাইট ধরেন রোডস। যাওয়ার আগে শেষবারের মতো বিসিবিতে আসেন সাবেক এই ইংলিশ ক্রিকেটার। বোর্ডের সঙ্গে শেষবারের মতো আলোচনা করতেই তার আসা। প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজনের সঙ্গে কথা বলেই সোজা বেরিয়ে যান।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘এটা একটা আনুষ্ঠানিকতার অংশ ছিল। অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়ার কিছু কাজ বাকি ছিল। এছাড়া আনুসঙ্গিক অনেক বিষয় ছিল, যেগুলো আমরা শেষ করলাম। তিনি সম্ভবত আজকেই (বৃহস্পতিবার রাতে) ঢাকা ছাড়বেন।’

সংবাদকর্মীদের সঙ্গে রোডসের কথা না বলার বিষয়ে প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবেই যখন একটা সম্পর্কের ইতি হয়, তখন সেখানে অনেক ব্যাখ্যা থাকে। হয়তো তিনি সেই বিষয়গুলো এড়িয়ে যেতে চেয়েছেন। এটা যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

আগের দিনে বোর্ড সভাপতির বক্তব্যের ব্যাখ্যায় এই কর্মকর্তা বলেন, ‘হ্যাঁ, বিষয়টি এ রকমই। আমরা আগেও বলেছি যে সমঝোতার মাধ্যমেই এটা হয়েছে। কিছু শর্তাবলী থাকে। বোর্ড সভাপতি সেটিই বলেছেন যে, শেষ পর্যন্ত উনি কবে যাবেন বা কী করবেন সেটা তার সিদ্ধান্ত। তিনি (রোডস) আমাদের বুধবার জানিয়েছেন। আমরাও তা রাতেই সভাপতিকে জানিয়েছি যে তিনি চলে যেতে চাচ্ছেন।’



আজকের প্রশ্ন