রবিবার, ২৫ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ২৭ জুলাই, ২০১৯, ০৮:৫৩:১১

শিগগিরই ছাত্রদলের নতুন কমিটি, সব সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত

 শিগগিরই ছাত্রদলের নতুন কমিটি, সব সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত

ঢাকা: অবশেষে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত! সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ২০০০ সালকে এসএসসি’র ভিত্তি বছর নির্ধারণ করে বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামে ভ্যানগাড হিসেবে পরিচিত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নতুন কমিটি খুব শিগগিরই গঠিত হচ্ছে। রাজপথে বিএনপির আন্দোলন-সংগ্রামের মূল চালিকাশক্তি ছাত্রদল। বয়সের সীমারেখা বেঁধে দেয়ায় এবার দুই শীর্ষ পদের জন্য আলোচিত ও আগ্রহী অনেকে লড়াই করার সুযোগ পাচ্ছেন না। যারা ২০০০ সালে কিংবা এর পরে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন তারাই কেবলমাত্র লড়তে পারবেন ছাত্রদলের নেতৃত্বের জন্য।

বিএনপির দায়িত্বশীল একটি সূত্র বলছে, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের নেতৃত্ব পাওয়ার পর প্রথম সিদ্ধান্ত দিয়েছেন ছাত্রদল নিয়ে। সূত্রের দাবি, যেকোনও অবস্থায় ছাত্রদলের নেতৃত্ব নিয়মিত শিক্ষার্থীদের হাতে ফেরানোর পক্ষে তারেক রহমান। সিলেকশনে নয়, কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে তিনি এবার কমিটি গঠন করবেন। এ ক্ষেত্রে শর্ত তুলে নেয়ার দাবিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে গেল জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে সহিংস রূপ দেখিয়ে যারা আন্দোলন করে বহিষ্কার হয়েছেন দলের সিদ্ধান্ত না মানলে প্রয়োজনে তাদের সংখ্যা আরও বাড়বে।

নতুন নেতৃত্ব তৈরি করতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্যদের সঙ্গে সার্চ কমিটির বৈঠক হয়েছে বেশ কয়েকবার। নির্ধারণ করা হয়েছে ভোটারও। ছাত্রদলের প্রতিটি সাংগঠনিক জেলা থেকে পাঁচজন করে কাউন্সিলর নেয়া হয়েছে।

সাংগঠনিক জেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজগুলোর কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহ-সভাপতি, যুগ্ম সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকরা ভোটার হতে পেরেছেন। তাদের মোট সংখ্যা ৫৮৫। এরাই মূলত ভোট দিতে পারবেন।

তবে অন্য একটি সূত্র জানিয়েছে, ভোটার থাকবে ৫৭৮ জন। এরই মধ্যে নানা কারণে কয়েকজন ভোটার বাদ পড়েছে। এদিকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে লড়তে চান এমন নেতারা নিজেদের মতো করে কাউন্সিলরদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন। কেউ কেউ আবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে জানান দিচ্ছেন নিজের সম্ভাব্য প্রার্থিতার কথা। বিএনপি ও ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের সঙ্গেও অনেকে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন।

তবে বিলুপ্ত কমিটির নেতাদের ছাত্রদলের কাউন্সিলের জন্য গঠিত ‘নির্বাচন পরিচালনা কমিটি’তে রাখা হবে। আগামীতে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দলসহ অন্য যেসব অঙ্গ সংগঠনের কমিটি হবে সেখানে বঞ্চিতদের যোগ্য পদে দায়িত্ব দেয়া হবে বলে দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকেও আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন প্রসঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সংগঠনটির সাবেক সভাপতি শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘আমরা নেতৃত্ব সার্চ করছি না, প্রক্রিয়া ঠিক করছি। ছাত্রদলের ভবিষ্যৎ খুব শুভ। ছাত্ররাই ছাত্ররাজনীতি করবে। যারা বুঝতে পারছে না, তাদের বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘ছাত্রদলের নেতৃত্ব সার্চ করবে, যাদের নেতৃত্ব দেয়া হবে তারা। ভোটের মধ্য দিয়ে নেতৃত্ব ঠিক হবে।’

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলেও বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও সংগঠনটির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।

সার্চ কমিটির অন্যতম সদস্য ও ছাত্রদলের আরেক সাবেক সভাপতি শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি  বলেন, ‘দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে দায়িত্বপ্রাপ্তরা বসার পর কাউন্সিলের তারিখ, স্থানসহ বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এরপর এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।’

ছাত্রদলের কমিটি গঠন প্রক্রিয়ায় জড়িত বিএনপির কয়েকজন সিনিয়র নেতা বলেন, ‘ছাত্রদল হচ্ছে বিএনপির প্রবেশদ্বার। ছাত্রদলের নেতৃত্বেই আশির দশকে স্বৈরাচার এরশাদকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করা সম্ভব হয়েছিল। ছাত্রদলের আগামী নেতৃত্বের জন্য বিএনপির হাইকমান্ড তৎপর রয়েছে। তাদের নির্দেশ মতো সম্ভাব্য ছাত্রনেতাদের তালিকা যাচাই-বাছাইও হয়েছে। বিষয়টি দেখছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। খুব শিগগিরই তিনি নতুন কমিটি উপহার দিতে পারবেন।’

সরেজমিন বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, এবার দেশের বৃহৎ এই ছাত্র সংগঠনটির সভাপতি পদে আগ্রহীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় আছেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সহ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল আলম ফকির লিঙ্কন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম-সম্পাদক হাফিজুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র সহ-সভাপতি তানভির রেজা রুবেল, বিলুপ্ত কমিটির বৃত্তি ও ছাত্র কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, কেন্দ্রীয় সহ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মামুন খান,কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক  নাদিয়া পাঠান পাপন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল আলম টিটু, ঢাকসু নির্বাচনের ছাত্রদলের ভিপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান, স্কুলবিষয়ক সম্পাদক আরাফাত বিল্লাহ ও বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ এরশাদ খান।

ছাত্র নেতৃত্বের এই ম্যারাথনে সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচিতদের মধ্যে আছেন, ঢাবির যুগ্ম সম্পাদক শাহনেওয়াজ, সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. মুতাসিম বিল্লাহ, যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, যুগ্ম সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম-সম্পাদক তানজিল হাসান, ঢাবির শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক।

এই বিভাগের আরও খবর

  সরকার মিয়ানমারের কাছে নতি স্বীকার করেছে: ফখরুল

  ডেঙ্গুতে আজও ৪ জনের মৃত্যু, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১১৭৯

  অবরুদ্ধ কাশ্মীরে ঢুকতে পারেননি রাহুলসহ ১২ বিরোধীনেতা, বিমানবন্দর থেকেই ফেরত পাঠাল প্রশাসন

  মানুষ যার উল্টাটা চায়, তারা সামনে এসে বলে আমরা নির্বাচিত: কামাল হোসেন

  সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত

  ফরিদপুরে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ৬, আহত ২০

  সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

  খালেদা জিয়ার মুক্তি মানে গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার মুক্তি: সেলিমা রহমান

  রাজনৈতিক ফায়দার জন্য কিছু মানুষ ধর্মকে পুঁজি করে: জিএম কাদের

  রোহিঙ্গাদের ফেরাতে চাপ অব্যাহত থাকবে: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

  আমাজনে আগুনের ঘটনায় বাণিজ্য চুক্তি বন্ধের হুমকি



আজকের প্রশ্ন