রবিবার, ০৭ জুন ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০, ১২:৫৫:১৭

‘জানালা যে কোনও সময় ভেঙে যেতে পারে’

‘জানালা যে কোনও সময় ভেঙে যেতে পারে’

সব তছনছ করে দিয়েছে সুপার সাইক্লোন আমফান। ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার বেগে কলকাতার উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে এই ঝড়। কতটা ক্ষতি হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা ধ্বংস হয়েছে সব চেয়ে বেশি। বাড়িঘর, নদী বাঁধ ভেঙে গেছে, ক্ষেত ভেসে গেছে। তখনও পর্যন্ত ১০ থেকে ১৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বুধবার (২০ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ সুন্দরবনে আছড়ে পড়ার পর দক্ষিণে তাণ্ডব চালিয়ে যখন উত্তর ২৪ পরগনায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে প্রবল ঘূর্ণিঝড়, সেই সময় রাত ৯টা নাগাদ নবান্নে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সারাদিনই নবান্নের কন্ট্রোল রুম থেকে ঝড়ের গতিপ্রকৃতির খোঁজখবর রাখছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী জানান, পাথরপ্রতিমা, নামখানা, বাসন্তী, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুর, ভাঙড় থেকে যা খবর এসেছে তা ভয়াবহ। খারাপ খবর উত্তর ২৪ পরগনা থেকেও। তবে ক্ষয়ক্ষতি কতটা হয়েছে, সেই সংক্রান্ত সবিস্তার তথ্য পেতে ৩-৪ দিন লেগে যাবে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, দক্ষিণবঙ্গ প্রায় ৯৯ শতাংশ শেষ হয়ে গেছে। একটা ডিজাস্টার হয়েছে, আমরা শকড। আমরা খুবই স্তম্ভিত, খুব খারাপ লাগছে। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে মমতা বলেন, কেন্দ্রের কাছে আবেদন থাকবে, পলিটিক্যালি দেখবেন না, মানবিক ভাবে দেখুন।

তিনি বলেন, বিদ্যুৎ নেই, জল নেই, পুকুর, চাষের জমি সব শেষ। ধ্বংসের হাত থেকে উন্নয়নের পথে আবার সবাইকে শামিল করে একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেন মমতা।

এদিকে অভিনেত্রী তথা সাংসদ মিমি চক্রবর্তী একটি টুইট করে জানিয়েছেন তাঁর বাড়ির জানালাও প্রায় ভেঙে যেতে বসেছিল। মিমি একটি ভিডিও পোস্ট করে টুইটে লিখেছেন, আমার জানালা যে কোনও সময় ভেঙে যেতে পারে। এই বছর সব চেয়ে সাংঘাতিক জিনিসগুলির অভিজ্ঞতা হচ্ছে। আয়লার চেয়েও সাংঘাতিক রূপ বাংলার মানুষকে দেখালো আমফান।

এই বিভাগের আরও খবর



আজকের প্রশ্ন