বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ০৫:৩২:৩৬

কিমের শিরশ্ছেদ করতে প্রস্তুত ‘স্পার্টান ৩০০০’

কিমের শিরশ্ছেদ করতে প্রস্তুত ‘স্পার্টান ৩০০০’

আন্তজার্তিক ডেস্ক : কিম জং উনের ঠাকুরদা কিম ইল সাং-কে হত্যা করার জন্য একসময় একদল লোককে ট্রেনিং দিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া। জেল থেকে কিংবা রাস্তা থেকে ধরে এনে ট্রেনিং দেওয়া হয় কিম ইল সাং-কে হত্যা করার জন্য। ১৯৬০ সালে সিওলের প্রেসিডেন্টের বাসভবনে ঢুকে তছনছ করে দেওয়ার চেষ্টা করে উত্তর কোরিয়ার কমান্ডোরা। আর তারপরই এই পরিকল্পনা করেছিল সিউল। উদ্দেশ্য ছিল উত্তর কোরিয়ায় ঢুকে কিম ইলা সাং-এর গলা কেটে খুন করা। কিন্তু পুরো পরিকল্পনা বিফলে যায়। ওই ইউনিটের সদস্যদের গোপনে খুন করে দক্ষিণ কোরিয়া। ট্রেনারদেরও শেষ করে দেওয়া হয়। কয়েক দশক ধরে ধামাচাপা দিয়ে রাখা হয় সেই পরিকল্পনার কথা।

 

এবার সেই কিম ইল সাং-এর নাতি কিম জং উন স্বমহিমায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। আমেরিকা তথা গোটা বিশ্বকে উপেক্ষা করে একের পর এক পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করছে। তাকেও তো ঠাণ্ডা করতে হবে! তাই এবার সেই পুরনো পরিকল্পনার পথেই হয়ত হাঁটছে দক্ষিণ কোরিয়া।

 

সম্প্রতি, এক বিশেষ ইউনিট তৈরির নির্দেশিকা থেকে অন্তত সেকথাই মনে হচ্ছে। কিম জং উনকে প্রাণে মারতে কিংবা প্রাণে মারার ভয় দেখিয়ে কোণঠাসা করে ফেলতে সিউল যে ইউনিট তৈরি করেছে তার নাম ‘decapitation unit’ অর্থাৎ ‘শিরশ্ছেদকারী দল।

চলতি বছরের শেষেই এই ইউনিট তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সং ইয়ং মু।

 

অফিশিয়ালি ওই ইউনিটের নাম দেওয়া হয়েছে ‘স্পার্টান ৩০০০’। প্রতিরক্ষামন্ত্রী সং ইয়ং মু জানিয়েছেন, ওই ইউনিটের কাজ হবে সীমান্তের ওপারে গিয়ে আক্রমণ করা। রাতের অন্ধকারে হেলিকপ্টার কিংবা বিমানে চেপে উত্তর কোরিয়ায় গিয়ে হামলা চালানোর অধিকার দেওয়া হয়েছে তাদের।

 

কোনও দেশ অন্য দেশের রাষ্ট্রপ্রধানকে হত্যার নির্দেশ দিচ্ছে, এমন ঘটনা খুবই বিরল। তবে এক্ষেত্রে কিম জং উনকে একেবারে খাদের কিনারায় দাঁড় করিয়ে দিতে চাইছে দক্ষিণ কোরিয়া। পরমাণু অস্ত্রের অগ্রগতি রুখতে সব রকমের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সিওল।

 

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে হত্যার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার কমান্ডোদের এবার বিশেষ প্রশিক্ষণ দেবে মার্কিন নৌ কমান্ডো ‘সিল।’ দেশ দু’টির মধ্যে যুদ্ধ লাগলে কিমকে হত্যা করা হবে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ দৈনিক ‘টাইমস’। আল-কায়েদার সাবেক নেতা ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করেছিল এই মার্কিন ‘সিল।’ এদিকে, যে কোনও সময় আরও একটা মিসাইল ছুঁড়তে পারে উত্তর কোরিয়া। কোলকাতা টুয়েন্টি ফোর।



আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?