শুক্রবার, ২০ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১২ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:২৬:০১

মেধাবী কারা?

মেধাবী কারা?

সুলতানা রহমান
প্রায় ১৫ মিনিট বাসস্টেশনে অপেক্ষায়; সময় নষ্ট না করে নিউজ ফিডে মন দেই। সেখানে কোটাবিরোধী সংবাদ, সংঘর্ষ আর অমানবিক দাবি দাওয়ার পাশে অশ্লীল মন্তব্য!

যারা পিছিয়ে আছে, যারা দুর্বল, যারা বিশেষভাবে যোগ্য, যারা দেশের জন্য জীবন বাজি ধরেছিলেন তাদের সন্তান, পরিবারের বিরুদ্ধে এ আন্দোলন!

আহা আমরা নিজেদের উপর এতো কম ভরসা করি যে অন্যের অধিকারটুকু কেড়ে নিতে চাই, আমরা এতো কম মেধাবী, এতো কম যোগ্যতাসম্পন্ন!

ভাবতে ভাবতে নির্ধারিত বাসটি সামনে এসে দাঁড়ালো। চালক হাত ইশারায় উঠতে নিষেধ করলেন! একটি সুইচ টিপে বাসের প্রবেশ পথে রাস্তার সঙ্গে সংযোগ বানালেন, বাস ভর্তি যাত্রীরা নীরবে বসে আছেন, আমার সঙ্গে আধা ঘণ্টা ধরে অপেক্ষমাণ যাত্রীরা দর্শকের মতো তাকিয়ে আছে!

চালক নিজের আসন ছেড়ে ভেতরে গেলেন, বাসের প্রায়োরিটি সিটের স্থানটিতে নিজস্ব হুইল চেয়ারে বসা এক যাত্রীর কাছে গেলেন। নিরাপত্তার জন্য হুইল চেয়ারটি বিশেষ ভাবে লক করা ছিল। সেটি খুলে চালক যাত্রীটিকে পরম যত্নে বাইরে নিয়ে এলেন!

আমি ঘড়ির দিকে তাকিয়ে আরো ১২ মিনিট লেট! প্রায় ৩০জন যাত্রীকে বসিয়ে রেখে, আরো ৭/৮ জনকে অপেক্ষমাণ রেখে একজন শারীরিক প্রতিবন্ধীর জন্য এতটা সময় নষ্ট করা হলো!

অথচ এ দেশে সময়ের মূল্য সবচেয়ে বেশি। মিনিটে মিনিটে ডলারের হিসেব যেখানে সেখানে সবাই নীরবে সময় দিলো একজন প্রতিবন্ধী যাত্রীকে!

এটি তার অধিকার। আর আমরা যারা নিজেদের সক্ষম দাবি করি তাদের দায়িত্ব তার চলার পথ মসৃণ করে দেয়া। আমি যদি সত্যিই সক্ষম হই একে সময় নষ্ট বলব না, বলব আমি কর্তব্য পালন করেছি, কোনো ক্ষতি হয়ে থাকলে নিজের সক্ষমতা দিয়ে পুষিয়ে নিতে পারব। তারচেয়েও বড় বিষয় আমরা মানুষ, আমাদের মানবিক হওয়া উচিত!

ঢাকার রাস্তায় আন্দোলন করছে তাদের মেধা নিয়ে আমি শঙ্কিত। অমানবিক স্বার্থকেন্দ্রিক মেধা দিয়ে জাতি কী করিবে? সম্মানিত মানুষকে সম্মান করে না যে মেধাবী, তার কোনো মূল্য নেই।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সেনা এবং তাদের পরিবার বিশেষ রাষ্ট্রীয় মর্যাদা পায় এখনও। আমাদের কথিত মেধাবীরা না পারে দুর্বলের পাশে দাঁড়াতে না পারে সম্মান বা কৃতজ্ঞতা জানাতে!

প্রতিটি মানুষই নাকি জন্মগত ভাবে চ্যম্পিয়ন হয়ে জন্মায়! কারণ মাতৃগর্ভে তার ভ্রুণটি লক্ষ লক্ষ শুক্রাণুর সঙ্গে লড়াই করে জয়ী হয়েছে। তেমনি পৃথিবীর সব মানুষ কম বেশি মেধা নিয়ে জন্মায়। কিন্ত সবাই নিজেকে বিকশিত করার সমান সুযোগ পায়না।

যারা এগিয়ে থাকে তাদের দায়িত্ব সমাজের ব্যবধান কমানো। মেধাবী হলে, সক্ষম হলে, যোগ্য হলে কিসের ভয়? স্রোতে চলতে সবাই পারে, সবাই স্রোত সৃষ্টি করতে পারে না। যারা পারে তাঁরাই মেধাবী ।

লেখক: যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী সাংবাদিক

 

আজকের প্রশ্ন

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি করছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?