শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:৪৭:৪৫

পুলিশ পরিচয়ে কলেজছাত্রীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক, অতপর...

পুলিশ পরিচয়ে কলেজছাত্রীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক, অতপর...

পাবনা: পাবনার চাটমোহর থানা পুলিশের রাইটার ইজাজুল ইসলাম ওরফে ইজাজ (মামলা লেখক) নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে বিয়ের প্রলভনে দৈহিক সম্পর্ক করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি ওই কলেজছাত্রী ইজাজকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর ক্ষোভে ও দুঃখে ওই কলেজছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরে তাকে (কলেজছাত্রী) চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।
এরপর ওই কলেজছাত্রী বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে প্রতারক ইজাজ। তিনি উপজেলার গুনাইগাছা ইউনিয়নের মোঃ আইনুল হকের ছেলে।
জানা গেছে, ইজাজ দীর্ঘদিন পুলিশের রাইটার (মামলা লেখক) হিসেবে কাজ করার সুবাদে বিভিন্ন জায়গায় নিজেকে পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিত। তার কৌশলগত আচরণ ও থানার দারোগাদের সাথে প্রতিনিয়ত চলাফেরা ও সখ্যতা দেখে সাধারণ মানুষ তাকে পুলিশ বলেই জানতো। বিভিন্ন সময় সে এসআই ও এএসআই’দের সাথে মামলা তদন্ত করা থেকে আসামি ধরতেও বিভিন্ন এলাকায় যেতো।
সম্প্রতি সে চিরইল এলাকার এক গ্রাম পুলিশের মেয়ে ও চাটমোহর ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের (ভোকেশনাল) এক ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে এবং বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই কলেজছাত্রীর সাথে সে একাধিকবার দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। অতি সম্প্রতি ওই কলেজ ছাত্রী তাকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে (ইজাজ) বিয়ে করতে পারবে না বলে জানিয়ে দেয়। এরপর ওই কলেজ ছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরে তাকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা শেষে গত মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) থানায় অভিযোগ দেন ওই কলেজছাত্রী।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাটমোহর থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ শরিফুল ইসলাম জানান, ‘ইজাজ পুলিশের কেউ নয়। অভিযোগ পেয়েছি। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?