মঙ্গলবার, ২১ মে ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০১৯, ০৫:১৭:০০

সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ মারা যাননি, অবস্থা সংকটাপন্ন

সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ মারা যাননি, অবস্থা সংকটাপন্ন

ঢাকা : বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে আজ সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহর মৃত্যু খবর প্রকাশিত হয়। তবে এ খবরটি সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন তার মেয়ে ডা. মেঘলা। সংবাদমাধ্যমে মাহফুজ উল্লাহর মৃত্যুর খবর দেখে আজ রোববার বিকেলে থাইল্যান্ডের ব্যাংকক থেকে ডা. মেঘলা গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ডা. মেঘলা জানান, ‘গণমাধ্যমে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, তা সঠিক নয়। বাবা এখনো বেঁচে আছেন। তবে তার অবস্থা সংকটাপন্ন। চিকিৎসকরা তার ওষুধ বন্ধ করে দিয়েছেন।’

এর আগে আজ দুপুরে থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে প্রকাশিত হয়।

গত ১০ এপ্রিল গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে থাইল্যান্ডে নেওয়া হয়। সেখানে তার সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বড় মেয়ে ডা. মেঘলা ও জামাতা রয়েছেন। এর আগে ২ এপ্রিল ধানমন্ডির গ্রীন রোডে মাহফুজ উল্লাহ তার নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। পরে শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় মাহফুজ উল্লাহকে উন্নত চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তিনি দীর্ঘদিন হৃদরোগ, কিডনি ও উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। 

এই বিভাগের আরও খবর

  এসএ টিভির সিওওসহ চার জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

  সাংবাদিক শুনেই ‘ক্ষেপলেন’ এএসআই!

  ওয়েজবোর্ড ঘোষণা না হলে লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা সাংবাদিকদের

  বেতন-ভাতার দাবিতে চ্যানেল ৯ এর সাংবাদিকদের স্মারকলিপি

  শমীকাণ্ডে বিএফইউজে-ডিইউজের বিবৃতিতে ‘আপত্তিকর বাক্য’

  প্রয়োজনে শমী কায়সারকে নিয়ে নিয়মিত সংবাদ পরিবেশন

  সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ মারা যাননি, অবস্থা সংকটাপন্ন

  বগুড়া জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি মামুন, সম্পাদক সুমন

  বিদেশি চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন বন্ধ হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

  বাংলাভিশনের ১৪ বর্ষে পদার্পণ

  যৌন হয়রানির মামলা তুলে নিতে সেকান্দারের লোকজনের বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?