মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ০৭:৫১:০৯

‘সুষ্ঠু নির্বাচনে ব্যর্থ হলে ইসিকে আইনের আওতায় আনতে হবে’

‘সুষ্ঠু নির্বাচনে ব্যর্থ হলে ইসিকে আইনের আওতায় আনতে হবে’

ঢাকা: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন সবার কাছে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য না হলে নির্বাচন কমিশনকে আইনের আওতায় এনে কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

ইসিকে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রয়োজনীয় আইন সংশোধন করার প্রস্তাব দিয়েছে দলটি। সেই সঙ্গে নির্বাচনের একদিন আগে কেন্দ্রে কেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানান তারা।  
 
রবিবার (১০ সেপ্টেম্বর)  রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে  নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সংলাপের সময় এসব দাবি জানায় দলটি।

দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মো. ইউনুছ আহমাদের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেন।
 
সংলাপে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা সভাপতিত্ব করেন। এসময় অন্যান্য কমিশনার, ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অংশ নেন।
 
এ সময় সংসদ সদস্য থাকা অবস্থায় কেউ যাতে নির্বাচন করতে না পারে সেজন্য সংসদ ভেঙে দিয়ে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দাবি জানায় ইসলামী আন্দোলন।  আর সবার সুবিধার্থে অনলাইনের মনোনয়ন দাখিলের দাবি জানায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

এছাড়া নির্বাচনী জামানত ১০ হাজার টাকা, সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্বমূলক নির্বাচন পদ্ধতি প্রণয়নের জন্য আইন করা, নির্বাচনী ব্যয় কমানো, সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টিসহ ১৫ দফা দাবি জানায় দলটি।
 
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের উল্লেখ্যযোগ্য দাবি গুলো হচ্ছে- সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশনকে সম্পূর্ণ দলীয় প্রভাবমুক্ত,স্বাধীন এবং শক্তিশালী করতে সর্বোচ্চ ক্ষমতা দিতে হবে।  এরপরও সুষ্ঠু নির্বাচনে ব্যর্থ হলে এবং নির্বাচনকালীন পক্ষপাতদুষ্ট  প্রমাণিত হলে নির্বাচন কমিশনকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে আইন প্রণয়ন করা। গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের স্বার্থে সর্বোচ্চ আদালত কর্তৃক পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা রাখা।

সংলাপে ইসলামী আন্দোলনের নেতারা বলেন, নির্বাচন কমিশনের এমন ক্ষমতা থাকতে হবে-যার দ্বারা কোনও দল ও তাদের সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতা-কর্মীরা যদি দুর্নীতি , সন্ত্রাস , চাঁদাবাজি, নৈরাজ্য করে সে দলের নিবন্ধন বাতিল করতে পারবে । এই মর্মে প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়ন করতে হবে।

এ সময় দেশি-বিদেশি সাংবাদিক ও নির্বাচনী পর্যবেক্ষকদের  ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণে কোনও বাধা সৃষ্টি না করারও দাবি জানায় ইসলামী আন্দোলন।

সংলাপে একাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের বিরুদ্ধে মত দেন দলটির নেতারা। এর কারণ হিসেবে বাংলাদেশের সাধারণ নাগরিকরা এখনও পুরোপুরি ইভিএমের সাথে পরিচিত নয় বলে যুক্তি দেন তারা। 

ইসির সঙ্গে সংলাপে একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে বর্তমান সংসদ ভেঙে দিয়ে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দাবি জানায় ইসলামী আন্দোলন। এছাড়া প্রার্থীসহ নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত সবার প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানায় দলটি।    

এই বিভাগের আরও খবর

  প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে অপপ্রচারের সাহস কোথায় পায়: রিজভী

  'রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৫ দফার পক্ষে সারাবিশ্ব'

  ‘প্রধানমন্ত্রী কিভাবে নোবেল বিজয়ের স্বপ্ন দেখেন’

  যুবদল নেতা আনন্দ শাহ কে অবিলম্বে মুক্তি দিন : যুবদল

  ‘প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্রের খবর ভিত্তিহীন’

  আ.লীগ ক্ষমতায় এলেই দেশে দুর্ভিক্ষ হয়: দুদু

  দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা করছে: কাদের

  গ্যাটকো মামলার পরবতী শুনানি ৫ নভেম্বর

  রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকার সময় মতো পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে: রিজভী

  শেখ হাসিনা বিশ্ব কাঁপিয়ে দিয়েছেন: আমু

  কোনো উসকানিতে সাড়া দেবে না বাংলাদেশ



আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?