বুধবার, ২৯ জানুয়ারী ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০১৯, ০১:১২:৪৯

খালেদা জিয়াকে আর কষ্ট দেবেন না, এবার মুক্তি দিন: প্রধানমন্ত্রীকে রিজভী

খালেদা জিয়াকে আর কষ্ট দেবেন না, এবার মুক্তি দিন: প্রধানমন্ত্রীকে রিজভী

ঢাকা : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা বঞ্চিত না করে এবং তাঁকে আর কষ্ট না দিয়ে অবিলম্বে মুক্তি দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেছেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে বিনা চিকিৎসায় আপনি অমানবিক কষ্ট দিচ্ছেন, বেগম জিয়ার প্রতি এই নিষ্ঠুরতা বিশ্বের স্বৈরশাসকরা যে আচরণ করে সেই আচরণেরই সমতুল্য। দেশনেত্রীকে আর কষ্ট না দিয়ে তাঁকে নিঃশর্ত মুক্তি দিন। আপনি জনগণের পুঞ্জিভূত ক্রোধ আঁচ করতে পারছেন না বলেই বেগম জিয়াকে মুক্তি না দিয়ে তাঁকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার চেষ্টায় উঠেপড়ে লেগেছেন। কিন্তু আপনার নেতৃত্বে পরিচালিত ফ্যাসিবাদী সরকারের লোহার খাঁচা ভেঙে দেশনেত্রীকে মুক্ত করার জন্য জনগণ এখন চূড়ান্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।’

সোমবার (২ ডিসেম্বর) সকালে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে রাজধানীতে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে পথসভায় দেয়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজধানীর কলাবাগান বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্ব দেন রিজভী। মিছিলটি ল্যাবএইড হাসপাতালের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু আশফাক, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মাহমুদুর রহমান সুমন, পশ্চিম ছাত্রদল নেতা কামরুজ্জামান জুয়েল এবং যুবদল নেতা সোহেলসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন।

পথসভায় রিজভী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা ক্রমান্বয়ে চরম অবনতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। দেশনেত্রীকে চিকিৎসা দেয়ার নামে নানা টালবাহানা ও জনগণকে ধোকা দেয়ার চেষ্টা করছে সরকার। জনগণের দাবি উপেক্ষা করে বেগম জিয়াকে কোনও বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ দেয়া হয়নি। তাঁর শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি ঘটা সত্ত্বেও সরকারের লোকেরা বেগম জিয়া সুস্থ আছেন বলে তোতা পাখির মতো সরকারের শেখানো বুলি আউড়িয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘দেশে ভয়াবহ দুঃশাসনসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনগণের এখন নাভিঃশ্বাস উঠেছে। দেশ পরিচালনায় সরকার চারিদিক দিয়েই ব্যর্থ। বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর ভয়াবহ দুঃশাসনকে প্রতিরোধ করার জন্য মানুষ এখন পথে পথে প্রস্তুত হয়ে রয়েছে।’

রিজভী বলেন, ‘সরকারের উদ্দেশ্যে বলতে চাই- পৃথিবীর অতীত ইতিহাস ভুলে যাবেন না, কোনও স্বৈরাচারী শাসক এভাবে দেশে দুঃশাসন চালু রেখে জনগণের রোষানল থেকে রেহাই পায়নি। যুগে যুগে বিশ্বে স্বৈরশাসকদের পতনের মতোই আপনাদেরও যেকোনও মুহূর্তে পতনের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আবারও অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।’

এর আগে মিছিলে অংশগ্রহণকারী নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়াকে ‘গণতন্ত্রের মা’ ও এদেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় নেত্রী আখ্যা দিয়ে দ্রুত তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সোচ্চার কণ্ঠে শ্লোগান দেন।

আজকের প্রশ্ন

ঢাকার সিটি নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট হলে জনগণের রায় প্রতিফলিত হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আপনিও কি তাই মনে করেন?