Timesofbangla.com
ইজতেমায় যাবেন না মাওলানা সাদ, বাংলাদেশ ছাড়বেন
Thursday, 11 Jan 2018 18:56 pm
Reporter :
Timesofbangla.com

Timesofbangla.com

ঢাকা : তাবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভী বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবেন না। তিনি সুবিধামতো সময়ে বাংলাদেশ ছেড়ে চলে যাবেন। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে তাবলিগ জামাতের বিবাদমান দুটি পক্ষের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, মাওলানা সাদ সুবিধামতো সময় বাংলাদেশ ছেড়ে চলে যাবেন। তিনি ইজতেমায় অংশ নেবেন না। যতক্ষণ পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশে থাকবেন ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি কাকরাইলে থাকবেন। তবে তার পরিবর্তে বিশ্ব ইজতেমায় আখেরি মোনাজাত কে পরিচালনা করবেন তা ঠিক করবেন তাবলিগ নেতারা।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আশা করি এই সিদ্ধান্তের পর কাল থেকে আর কেউ সড়কে নামবেন না। সবকিছু শান্তিপূর্ণভাবে হবে।

বুধবার বাংলাদেশে সাদের আগমনের খবর পেয়ে সকাল থেকে বিমানবন্দর এলাকায় বিক্ষোভ করেন কওমিপন্থী ও তাবলীগ জামাতের একাংশের কর্মীরা। বিক্ষোভের মধ্যেই তাকে কাকরাইল মসজিদে নিয়ে যাওয়া হয়।

এরপর পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত হয়ে উঠে। হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের যুগ্ম সম্পাদক ফজলুল হক কাশেমী বলেন, দেশকে অশান্ত করার চেষ্টা চলছে। তাকে (মাওলানা সাদ) না আনতে বলা হয়েছিল। তিনি নিজেকে তাবলিগের আমির বলে ঘোষণা করেছেন, যা অনেকেই মানেন না। তিনি বিতর্কিত বক্তব্য দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে তাবলিগ জামাতের মারকাজ দিল্লির নিজামুদ্দিনে অবস্থিত। ওই মারকাজের শীর্ষ মুরব্বি মাওলানা সাদের বিভিন্ন সময়ে দেয়া বক্তব্য নিয়ে এই বিতর্কের সৃষ্টি। বক্তব্যে তিনি আলেমদের অর্থের বিনিময়ে ধর্মীয় শিক্ষা দেয়ার বিরোধিতা করে কঠোর সমালোচনা করেন। এছাড়া ক্যামেরাযুক্ত মোবাইল পকেটে রেখে নামাজ হয় না বলেও মন্তব্য করেন। মাওলানা সাদ আরো বলেন, ‘তবলিগ করা ছাড়া কেউ বেহেশতে যেতে পারবে না’। এই বক্তব্য দেয়ায় তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ।

দারুল উলুম দেওবন্দ মাওলানা সাদের বক্তব্যের প্রতিবাদ করে। এমনকি দেওবন্দের মুহতামিম মাওলানা আবুল কাসেম নোমানিসহ শীর্ষ আলেমরা বিবৃতি দিয়ে তার বক্তব্য প্রত্যাহারেরও আহ্বান জানান। এরপর এ নিয়েই শুরু হয় তাবলিগ জামাতের মধ্যে অস্থিরতা।