Timesofbangla.com
মালয়েশিয়ায় ২ শতাধিক বাংলাদেশি আটক
Sunday, 18 Aug 2019 16:15 pm
Reporter :
Timesofbangla.com

Timesofbangla.com

প্রবাস ডেস্ক: মালয়েশিয়া ত্যাগের সুযোগের পাশাপাশি চলছে অবৈধ অভিবাসীদের গ্রেপ্তার অভিযান। চলতি মাসের শুরুতে মালয়েশিয়া সরকারের সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নিয়ে মালয়েশিয়া ত্যাগ করছে বিভিন্ন দেশের ৮ শতাধিক অভিবাসি। আবার অবৈধ অভিবাসী বিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার হয়েছেন বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের চার শতাধিক।
অভিবাসন বিভাগের প্রধান দাতুক খায়রুল দাজামি সাংবাদিকদের জানান, আমরা যেমন অবৈধ অভিবাসীদের দেশ ত্যাগের সুযোগ দিয়েছি, তেমনি এই সুযোগ নিতে যারা ব্যর্থ হচ্ছে, তাদেরকে গ্রেপ্তার করে কঠোর আইনের মুখোমুখি করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তিনি আরো বলেন, গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে আমরা চিহ্নিত করে কৌশলগত অভিযান পরিচালনা করছি এবং সফল হয়েছি।
চলতি মাসের ৬ আগস্ট টেরেংগানুর কেরতেহ এলাকায় একটি হাইড্রোজেন নিটোরেজন বিল্ডিং কনস্ট্রাকশন সাইটে অভিযান চালিয়ে ১৮৮ জনকে গ্রেপ্তার করে অভিবাসন বিভাগ। যার মধ্য বাংলাদেশি ৬০, পাকিস্তানের ১১০, ইন্দোনেশিয়ার ১২ এবং ইন্ডিয়ার ৬জন। পাহাং থেকে ৭ আগষ্ট ৫৬ জনকে গ্ৰেফতার করে।যার মধ্যে অন্যতম ছিলো ৪৬ বাংলাদেশি আটকের ঘটনা।
১৪ ও ১৫ আগস্ট আবারো পাহাং থেকে আটক করা হয় ৪৬ জনকে। আটককৃতদের মধ্যে বাংলাদেশের ১৫, ইন্দোনেশিয়ার ১১, মায়ানমারের ৫, বাকিরা নেপাল, ইন্ডিয়া ও শ্রীলঙ্কার নাগরিক। কুয়ালালামপুর থেকে ২২, জহুর বারু থেকে ৩২, পেনাং থেকে ১৯,কেডাহ থেকে ৬ জন বাংলাদেশি সহ আটক হয়েছেন ২০০ শতাধিক।
এছাড়াও প্রতিদিনই গ্রেফতারের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা।
উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসীদের নিজ দেশে যাওয়ার সুযোগ দিয়েছে দেশটির সরকার। আগামী ১ আগস্ট থেকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে দেশ ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই সুযোগ পাওয়ার পরও যারা মালয়েশিয়ায় অবস্থান করবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থান নেয়া হবে বলে অভিবাসন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।
অবৈধ অভিবাসীদের দেশ ত্যাগের সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে মালয়েশিয়াজুড়ে ৮০টি কাউন্টার খোলা হবে। অবৈধ ব্যক্তিদের সরাসরি ইমিগ্রেশন অফিসে উপস্থিত হয়ে আবেদন করতে হবে।এর আগে, মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধরা স্পেশাল পাস নিয়ে দেশে ফেরার সুযোগ পান। আত্মসমর্পণের মাধ্যমে স্বেচ্ছায় নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার কর্মসূচি থ্রি প্লাস ওয়ান এর মেয়াদ শেষ হয় গত বছরের আগস্টে।