মঙ্গলবার, ২৫ জুন ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০১ জানুয়ারী, ২০১৯, ১০:৩৫:৩৮

পয়লা জানুয়ারি বর্ষবরণ হয় না এই ১০ দেশে

পয়লা জানুয়ারি বর্ষবরণ হয় না এই ১০ দেশে

ঢাকা : গোটা দেশ সোমবার রাত ১২টায় নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত হয়৷ তার বেশ কয়েক ঘণ্টা আগেই নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াতে হয়ে গেল বর্ষবরণ৷ কিন্তু জানেন কী, বেশ কয়েকটি দেশ ১ জানুয়ারী নববর্ষ পালন করে না৷

আরব দেশে ১ জানুয়ারিতে হিজরি অর্থাৎ নববর্ষ শুরু হয় না। ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা কিংবা তিউনিসিয়ায় নতুন বছর শুরু অগস্ট থেকে অক্টোবর মাসের মধ্যে। নভেম্বরে এবং মার্চ মাসে যথাক্রমে চীন আর ইতালিতে নববর্ষ শুরু হয়। অবশ্য অনেক দেশ গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারকে এখনো পর্যন্ত গ্রহণ করেনি।

যেমন সৌদি আরব, নেপাল, ইরান, ইথিওপিয়া ও আফগানিস্তান। এসব দেশে ইংরেজি নববর্ষ পালন করা হয় না। আবার ইসরায়েল গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসরণ করলেও ইংরেজি নববর্ষ পালন করে না। আবার কিছু কিছু জাতি ও দেশের নিজস্ব নববর্ষ আছে। ইংরেজির পাশাপাশি তারা নিজের সেই কৃষ্টি আর সংস্কৃতিকেও ধরে রেখেছে মর্যাদার সঙ্গে। যেমন চীনা, ইহুদি ও মুসলমানরা তাদের নিজ নিজ ক্যালেন্ডার অনুসারে নববর্ষ পালন করে থাকেন।

ঐতিহাসিকদের মতে, এই যুগে আমরা যে ইংরেজি সাল বলি, এটিই হচ্ছে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার। এটি একটি সৌর সাল। নানা পরিবর্তন, পরিমার্জন, পরিবর্ধন, বিবর্তন ও যোগ-বিয়োজনের মধ্য দিয়ে বর্ষ গণনায় এই বর্তমান কাঠামোটি এসেছে। আমাদের আগের মানুষ চন্দ্র-সূর্য দেখে সময় হিসাব করলেও তারও আগে মানুষ বুঝতই না, সময় আসলে কী। ধারণাটা প্রথমে এসেছিল চাঁদের হিসাব থেকে। চাঁদ ওঠা ও ডুবে যাওয়ার হিসাব করে দিন, মাস ও বছরের হিসাব করা হতো। তারা চাঁদ ওঠার সময়কে বলত ক্যালেন্ডস, পুরো চাঁদকে বলত ইডেস, চাঁদের মাঝামাঝি অবস্থাকে বলত নুনেস। সিজার চাঁদের এই হিসাব বাদ দিয়ে মাসের দিন ও তারিখ ঠিক করেন। অবশ্য সৌর গণনার হিসাব আসে অনেক পরে।

সূত্র: কলকাতা ২৪x৭

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?