বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৩ মার্চ, ২০১৯, ০১:০২:৫৭

আইনের শাসনে ১০ ধাপ অবনতি, মৌলিক অধিকার তলানিতে

আইনের শাসনে ১০ ধাপ অবনতি, মৌলিক অধিকার তলানিতে

ঢাকা: আইনের শাসন সূচকে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান ব্যাপক হারে অবনতি ঘটেছে। সূচকে ১২আইনের শাসনে ১০ ধাপ অবনতি, মৌলিক অধিকার তলানিতে৬টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১২তম। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১০২তম। এবার ১০ ধাপ অনবতি ঘটেছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা দ্য ওয়ার্ল্ড জাস্টিস প্রজেক্টের (ডব্লিউজেপি) প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। সংস্থাটি গত সপ্তাহের শেষ দিকে ‘আইনের শাসন সূচক-২০১৯’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান গত বছরের মতোই চতুর্থ। এক্ষেত্রে নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও ভারত বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে। পেছনে রয়েছে পাকিস্তান ও আফগানিস্তান।

ডব্লিউজেপি প্রতিবেদন অনুযায়ী, আটটি সূচকের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান সবচেয়ে খারাপ হচ্ছে মৌলিক অধিকারের সূচকে। একেবারে তলানিতে ঠেকেছে।  ১২৬টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রে ১১৯তম অবস্থানে রয়েছে।

নিয়ম ও নিরাপত্তার সূচকে বাংলাদেশ ১১৬ ও ফৌজদারি বিচারে ১১৪তম অবস্থানে রয়েছে। তবে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে উন্মুক্ত সরকারের সূচকে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৬তম।

প্রতিবেদন বলছে, গত এক বছরে বিশ্বের ৬১টি দেশের আইনের শাসনের অবনতি হয়েছে। সূচকে বাংলাদেশের নিচে রয়েছে ভেনেজুয়েলা, চীন, তুরস্ক, মিয়ানমার, ইথিওপিয়া, মিসর ও ইরান।

২০১৯ সালে নতুন করে ১৩টি দেশ এই তালিকায় যুক্ত হয়। প্রতিবেদনে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে থাকা শীর্ষ তিন দেশ ডেনমার্ক, নরওয়ে ও ফিনল্যান্ড। তলানিতে রয়েছে কঙ্গো, কম্বোডিয়া ও ভেনেজুয়েলা।

১২৬টি দেশের ১ লাখ ২০ হাজার খানায় জরিপ ও ৩৮০০ জন বিশেষজ্ঞের মতামত নিয়ে ডব্লিউজেপি এই সূচক ও প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে। সূচকের ভিত্তি মূলত আটটি। এগুলো হল- সরকারি ক্ষমতার সীমাবদ্ধতা, দুর্নীতির অনুপস্থিতি, উন্মুক্ত সরকার, মৌলিক অধিকার, নিয়ম ও নিরাপত্তা, নিয়ন্ত্রণমূলক ক্ষমতার প্রয়োগ, নাগরিক ন্যায়বিচার এবং ফৌজদারি বিচার।

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?