মঙ্গলবার, ১৮ জুন ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৮ এপ্রিল, ২০১৯, ০৮:৩১:৪৮

চলতি মাসেই আসছে ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি

চলতি মাসেই আসছে ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি

ঢাকা: সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে হচ্ছে বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামে ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি। চলতি এপ্রিল মাসেই আসছে এই নতুন আহ্বায়ক কমিটির ঘোষণা। সিনিয়র না জুনিয়র দিয়ে কমিটি হবে এমন প্রশ্ন থাকলেও কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন নেতা নির্বাচনের লক্ষ্যেই চলতি মাসেই আহ্বায়ক কমিটি দেয়া হচ্ছে বলে সংগঠনটির বিশ্বস্ত কয়েকটি সূত্র ব্রেকিংনিউজকে জানিয়েছে। ইতোমধ্যে নতুন কমিটিতে পদ প্রত্যাশীদের জাতীয় পরিচয়পত্র, সর্বশেষ শিক্ষা সনদ, ব্যক্তিগত সর্বশেষ রাজনৈতিক বিবরণসহ বিভিন্ন তথ্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান চেয়ে পাঠিয়েছেন বলেও জানা যায়।

ছাত্রদলের বড় একটি অংশ সম্মেলনের মাধ্যমে নেতা নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। কিন্তু কাউন্সিল হয়ে উঠছিল না। বর্তমান কমিটি দুই বছরের জন্য গঠিত হলেও মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে পঞ্চম বছরে পদার্পণ করেছে, যা নিয়ে সংগঠনের ভেতরে চরম ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। বহু নেতা হতাশায় ভুগছেন। দীর্ঘদিন ধরে নেতাদের পিছু পিছু ঘুরেও পদ না পেয়ে অনেকেই হতাশ। যদিও নতুন কমিটি ঘোষণার দাবিতে বর্তমান সভাপতি রাজীব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানের প্রতি প্রায় দুই বছর আগে অনাস্থা জানিয়েছেন অর্ধশতাধিক কেন্দ্রীয় নেতা। সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি করার জন্য বিএনপির শীর্ষ নেতাদের কাছে অনেকেই দাবি জানাচ্ছেন বহুদিন ধরে। তবে এবার আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদেরকে একটি সম্মেলন আয়োজন ও নতুন নেতৃত্বের কাছে দায়িত্ব ছেড়ে বিদায় দিতে হবে। কেননা ইতোমধ্যে কৃষকদল, মৎসজীবী দল, ওলামাদল সহ অন্য সংগঠনগুলোরও আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শামসুজ্জামান দুদু, ড. আসাদুজ্জামান রিপন, আমান উল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, আজিজুল বারী হেলাল, আব্দুল কাদির ভূইয়া জুয়েল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিউল বারী বাবু, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, বর্তমান সভাপতি রাজিব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান সহ-সাবেক ছাত্রনেতারা দফায় দফায় লন্ডনে অবস্থানরত দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে স্কাইপিতে বৈঠক করছেন।

কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার সাথে সংশ্লিষ্ট কয়েকজন সাবেক ছাত্রনেতা জানান, বয়স কোনো ফ্যাক্টর নয়। ত্যাগী ও আন্দোলন-সংগ্রামে ভূমিকা রাখা নেতারাই ছাত্রদলের নতুন কমিটিতে অগ্রাধিকার পাবেন। এবার ছাত্রদলের কমিটি অন্যবারের মতো বড় আকারের না করারও সিদ্ধান্ত আসবে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিজেই ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। তিনিই বিষয়টি দেখভাল করছেন। যোগ্য ছাত্র, মেধাবী ত্যাগীদের হাতেই ছাত্রদলের নেতৃত্ব দিবেন তিনি।

নতুন এ কমিটিতে শীর্ষ পদে আসতে আলোচনায় রয়েছেন আকরামুল হাসান, এজমল হোসেন পাইলট, নাজমুল হাসান, আলমগীর হাসান সোহান, আব্দুল ওহাব, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, ইখতিয়ার কবির, মামুন বিল্লাহ, জহিরুল ইসলাম বিপ্লব, আসাদুজ্জামান আসাদ, করিম সরকার, মিয়া মো. রাসেল, মেহবুব মাসুম শান্ত, মফিজুর রহমান আশিক, নূরুল হুদা বাবু, বায়েজীদ আরেফিন, নাহিদুল ইসলাম সুহাদ অন্যতম। এর বাইরেও শীর্ষ পদের জন্য চেষ্টা করছেন আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী, কাজী মোক্তার হোসেন, মিনহাজুল ইসলাম ভূঁইয়া, আবুল বাশার, আরজ আলী শান্ত প্রমুখ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘দলের সাংগঠনিক পুনর্গঠন আমাদের চলমান প্রক্রিয়া। দলকে শক্তিশালী করতে হলেই অবশ্যই সংগঠনগুলোকে ঠিক করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ এটা আমাদের জানা আছে। তবে এটা ঠিক নতুন কমিটি গঠন করতে পারলে সংগঠনের গতিশীলতা আসবে।’

ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে সংগঠনটির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়া এখনও আলোচনার পর্যায়ে আছে। এটা এখনও বাস্তব রূপ নেয়নি।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এবারের কমিটি হবে যোগ্যতার ভিত্তিতে। এই কমিটি হবে সর্বজন সমর্থিত। যারা কমিটিতে আসবে তাদেরকে অবশ্যই ছাত্র হতে হবে।’

সংগঠনটির আরেক সাবেক সভাপতি ও বর্তমান বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বলেন, ‘এবার আমরা বয়সটাকে বেশি প্রাধান্য দেবো না। বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামে দলের ত্যাগীদেরকে আমরা প্রাধান্য দেবো।’

জানতে চাইলে ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আলমগীর হাসান সোহান  বলেন, ‘বর্তমান কমিটির মেয়াদ অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। তাই আমাদের নেত্রীর (বেগম খালেদা জিয়া) মুক্তির জন্য সক্রিয় আন্দোলন জোরদারে ত্যাগী নেতাকর্মীদের নিয়ে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন এতো হিসেব করে লাভ নেই, ত্যাগী নেতাদের নিয়ে কমিটি দিয়ে আন্দোলন সফল হওয়ার পর সব হিসেবই করা যাবে। তাই আমরা দ্রুত কমিটি ঘোষণার জন্য দাবি জানাচ্ছি।’

ছাত্রদলের আরেক সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, ‘কমিটি গঠন নিয়ে তোড়জোড় চলছে। এই হচ্ছে তো আবার এই থেমে যাচ্ছে। বুঝছি না কমিটি কবে নাগাদ ঘোষাণা করা হবে। তবে আমাদের নেত্রীর মুক্তির আন্দোলন জোরদার করতে দ্রুত কমিটি ঘোষণা করা উচিত।’

বর্তমান কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক করিম সরকার বলেন, ‘মিথ্যা মামলায় কারাবন্দি আমাদের দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বেগমান করতে হলে নতুন কমিটির কোনো বিকল্প নেই। আমরা চাই আন্দোলনে সক্রিয় নেতাদের দিয়ে দ্রুত কমিটি করা হোক।’

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজিব আহসানকে সভাপতি আর মামুনুর রশিদ মামুনকে সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের ১৫৩ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি ৭৩৬ সদস্যের ‘ঢাউস’ পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?