সোমবার, ১৮ নভেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:১৮:৩০

পূর্ণাঙ্গ হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি

পূর্ণাঙ্গ হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি

ঢাকা: সংগঠনের চূড়ান্ত কোনো গঠনতন্ত্র ছাড়াই চলছে বিএনপির অঙ্গ দল জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল। কমিটি গঠন ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড সবই করা হচ্ছে বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশনা অনুসরণ করে। ফলে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির মেয়াদ কখনো অর্ধ যুগ পার হয়, কখনো বা এক যুগ ছাড়িয়ে যায়। যে কারণে দীর্ঘ সময় সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থেকেও কাঙ্ক্ষিত পদ না পেয়ে হতাশার কথা শোনাচ্ছেন অনেকে।
 
তবে সংগঠনের বর্তমান নেতারা বলছেন, ছাত্রদলের দুই বছর এবং যুবদলের তিন বছর মেয়াদী কমিটি করা হয়। যদিও সেই সময় পার হওয়ার পরও কমিটি অব্যাহত থাকে। অনেক ক্ষেত্রে ৫ বছরও অতিক্রম করে। স্বেচ্ছাসেবক দলের আগের কমিটিগুলো কোনোটা ১২-১৩ বছর, কোনোটা ৫ বছর পর নতুন কমিটি করা হয়েছে। আসলে কোনো কমিটির মেয়াদ অন্ততকাল বা মেয়াদহীনভাবে চলবে এটা কাম্য নয়। স্বেচ্ছাসেবক দলেরও কমিটির একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকা প্রয়োজন। বিগত দিনে নানা প্রতিকূল পরিবেশের কারণে হয়তো তা চূড়ান্ত করা হয়নি। আলাপ-আলোচনা করে সংগঠনের গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করা হবে বলেও জানান তারা।
    
বর্তমানে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৭ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কেন্দ্রীয় কমিটি দায়িত্ব পালন করছে। হাতেগোনা ১০দিন পরই এই কমিটি তিন বছরে পা দিতে যাচ্ছে। এ কমিটি ঘোষণা করা হয় ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর।
 
বিএনপি চেয়ারপারসনের নির্দেশক্রমে গঠনতন্ত্রের ১৩ ও ৮ (১) এর বিধানবলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটির অনুমোদন দেন।  দীর্ঘ সময়েও কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক দলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি। অবশেষে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে ২৫ অক্টোবরের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ হতে যাচ্ছে।
 
জানা গেছে, গত সোমবার বিকেলে তারেক রহমান স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির ৭ নেতা এবং দুই মহানগরের চারজন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সাথে স্কাইপিতে বৈঠকে এই নির্দেশ দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সহ-সভাপতি গোলাম সারোয়ার, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদরাজ্জামান ও সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী।
 
২০১৭ সালের পহেলা মে স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখার আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। উভয় কমিটি এক মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ করার নির্দেশ দিলেও তা হয়নি। এতে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন তারেক রহমান। এমন পরিস্থিতিতে তিনি সোমবার বিকেলে সংগঠনের ১১ নেতাকে ডেকে নিয়ে স্কাইপিতে কথা বলেন। এ সময় ২০ অক্টোবরের মধ্যে দুই মহানগরীর এবং ২৫ অক্টোবরের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে তার কাছে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
 
এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে কমিটি গঠন করে লন্ডনে পাঠাতে হবে। তারপর কমিটি চূড়ান্ত হলেই প্রেস দেয়া হবে।’
 
তিনি বলেন, ‘কমিটি গঠন নিয়ে সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কাজ করছেন।
আসলে এটা তো একটি সিকরেট বিষয়। এটা নিয়ে বিস্তারিত কিছু না বলাই ভালো।’
 
তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আশা করি, ত্যাগী এবং বিগত দিনে যারা আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন তাদেরকেই সংগঠনে রাখা হবে। বয়সের কারণে যারা ছাত্রদল করতে পারছেন না তাদেরকেও স্বেচ্ছাবেসক দলে অন্তর্ভূক্ত করা হবে।’
 
স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক দফতর সম্পাদক বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবক দলের কোনো গঠনতন্ত্র নেই। একটি খসড়া তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু তা এখন চূড়ান্ত করা হয়নি। বর্ধিত সভায় পাশ হলেই এটা চূড়ান্ত করা হবে।’
 
সংঠনের একাধিক নেতা জানান, দীর্ঘ সময় পর পর কমিটি গঠন নিয়ে অনেকেই নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন। কেউ কেউ হতাশ হয়ে রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় হয়ে পরছেন। ফলে সংগঠনে গতিশীল নেতৃত্ব তৈরি হচ্ছে না। সক্রিয় কোনো কর্মসূচি দিয়ে মাঠে নামতে পারছেন না স্বেচ্ছাসেবক দল।
 
গঠনতন্ত্র ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সার্বিক বিষয়ে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূইয়া জুয়েল বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবক দলের কোনো নির্দিষ্ট গঠনতন্ত্র নেই। চাইলেই তো আর এটা আমরা করতে পারি না। আইনজীবী, গঠনতন্ত্র বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে আমরা গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করবো।’
 
কমিটি গঠন প্রসঙ্গে জানাতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা তো একটা গোপনীয় বিষয়। আমরা কিভাবে কমিটি গঠন করবো বা কাকে রাখবো? এটা সাংবাদিকদের বলার বিষয় না। স্বেচ্ছাসেবক দলে যেহেতু কোনো বয়সের সময় সীমা নাই সেক্ষেত্রে সব বয়সীরাই সংগঠন করতে পারবেন। এখানে পেশাজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, শিক্ষক সবাই যুক্ত হতে পারেন। আমরা শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করবো।’
 
কমিটির মেয়াদ প্রসঙ্গে জুয়েল বলেন, ‘কোনো কমিটির মেয়াদ তো আনলিমিটেড করা যায় না। অবশ্যই একটা সময়সীমা থাকা দরকার। আগের কমিটিগুলো কোনোটা ১২-১৩ বছরও ছিল। কিন্তু আমরা এত দীর্ঘ সময় ধরে থাকতে চাই না।’
 
সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, পূর্ণাঙ্গ কমিটির মেয়াদ কতদিন হবে তারেক রহমান সে বিষয়ে কিছুই বলেননি। তবে অতি অল্প সময়ের জন্য এই কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হচ্ছে। আগের কমিটি ছিল ৩৩৩ সদস্য বিশিষ্ট ছিল। কিন্তু স্বেচ্ছাসেবক দলের এবারের কমিটি হবে ২০১ সদস্য বিশিষ্ট।
 

এই বিভাগের আরও খবর

  ‘খালেদা জিয়া আমার নেত্রী, তারেক রহমান যোগ্য উত্তরসূরী’

  ১৯৭২-২০১৯: কৃষক লীগের নেতৃত্বে ছিলেন যারা

  ভারতের এনআরসি এখন কোন পথে?

  ইফায় ৫০০ কোটি টাকার অনিয়ম

  স্বেচ্ছাসেবক লীগ মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের শীর্ষ পদ পেতে দৌড়ঝাঁপ

  পদত্যাগ করছেন মেয়র আরিফসহ বিএনপির কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা!

  মিটারে চলছে না সিএনজি ,ভাড়া নৈরাজ্য ,বিপাকে যাত্রীরা

  পূর্ণাঙ্গ হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি

  নাইট গার্ড বাবার ছেলে ধনকুবের ছাত্রলীগের নাজমুল

  চমেকে সরঞ্জাম কেনার প্রস্তাবেই দুর্নীতি: একটি ক্যাপ-মাস্কের দাম ৮৪ হাজার টাকা

  উপজেলা নির্বাচনে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী: শোকজের জবাবে ক্ষমা প্রার্থনা

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?