শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০১৮, ১১:৫৭:৩৭

বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার রোনালদিনহোর অবসর ঘোষণা

বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার রোনালদিনহোর অবসর ঘোষণা

স্পোটস ডেস্ক : অবসর ঘোষণা করেছেন ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার রোনালদিনহো। যদিও ২০১৫ সাল থেকে তিনি কোনো ফুটবল খেলছেন না। রোনালদিনহোর ভাই ও এজেন্ট রবার্তো বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আজ বুধবার এক টুইট বার্তায় রবার্তো লিখেন, সে থেমে গেছে। এখানেই শেষ। আমরা ব্রাজিল, ইউরোপ ও এশিয়ায় বিভিন্ন ইভেন্ট করব এবং অবশ্যই আমরা ব্রাজিল দলের সঙ্গে কিছু করতে যাচ্ছি।

গত বছরই ফুটবল থেকে অবসর নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন রোনালদিনহো। তিনি বলেছিলেন, সময় এসে গেছে। আগামী বছর ফুটবলকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় বলতে যাচ্ছি আমি। ফুটবল থেকে অবসর নেওয়ার পর আমি আমার সঙ্গীতধর্মী প্রকল্প নিয়ে কাজ করব, আমার ফুটবল স্কুলও আছে। এটা আমার জন্য নতুন কিছু হবে কিন্তু আমাকে মানিয়ে নিতে হবে।

১৯৮৭ সালে মাত্র ৭ বছর বয়সে ব্রাজিলের ক্লাব গ্রেমিওর ইয়ুথ টিমের হয়ে খেলতে শুরু করেন রোনালদিনহো। সেখানে তালিম নেওয়ার পর ১৯৯৮ সালে গ্রেমিওর হয়ে তার সিনিয়র ক্যারিয়ার শুরু হয়।

ওই ক্লাবটির হয়ে আলো ছড়িয়ে ২০০১ সালে তিনি ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে যোগ দেন।

৩৭ বছর বয়সী রোনালদিনহো ২০০২ সালে ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী দলে ছিলেন। এরপর ২০০৩ সালে তাকে দলে ভেড়ায় স্প্যানিম জায়ান্ট বার্সেলোনা। ২০০৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি খেলেন বার্সেলোনায়। বার্সায় পাঁচ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি দুটি লা লিগা ও একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছেন।

২০০৬ সালে বার্সেলোনার হয়ে তিনি চ্যাম্পিয়নস লিগও জিতেছিলেন। ২০০৫ সালে জিতেছিলেন ব্যালন ডি’অর।

২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি এসি মিলানের হয়ে খেলেছেন। সেখানে খেলাকালিন ২০১০-১১ মৌসুমে তিনি ইতালিয়ান সিরি’আ লিগের শিরোপাও জিতেছিলেন।

২০১১-২০১২ পর্যন্ত তিনি ব্রাজিলের ক্লাব ফ্লেমেঙ্গোর হয়ে খেলেন। এরপর অ্যাটলেটিকো মিনেইরো (২০১২-২০১৪), মেক্সিকোর কোয়েরেতারো (২০১৪-২০১৫) ও ফ্লুমিনেসের (২০১৫) হয়ে খেলেন।

২০১৫ সাল থেকে প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলের বাইরে থাকা রোনালদিনহো আজ বুধবার বুটজোড়া তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বর্তমানে দেশের মানুষের ক্রয়ক্ষমতা নাগালের বাইরে চলে গেছে। আপনি কি একমত?