মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯, ০৩:২৪:৪৭

সেমিফাইনাল খেলবে যে চার দল

সেমিফাইনাল খেলবে যে চার দল

স্পোর্টস ডেস্ক : ক্রিকেট দুনিয়ায় এখন বিশ্বকাপ উন্মাদনা। বাসায়, অফিসে, আড্ডায়, খাওয়ার টেবিলে এমনকি ঘুমের ঘোরেও এখন দুচোখে ঘুরছে বিশ্বকাপ। কে জিতবে সোনার সেই ট্রফিটা? কারা হবে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন? কাদের চোখে বরফ গলে নদী হবে? এরকম নানা প্রশ্ন আর কৌতূহল এখন তামাম দুনিয়ার ক্রিকেটপ্রেমীদের মাঝে।

এক্ষেত্রে হিসাবের খাতাটা একটু মিলিয়ে নিতে পারলেও কৌতূহলের উদ্রেক কিছুটা কমতে পারে। চলুন পাঠক দেখে নিই শেষ চারের দৌড়ে কে কোথায় দাঁড়িয়ে:

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ দলই ৬টি করে ম্যাচে খেলে ফেলেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ৭টি খেলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা, আর সবচেয়ে কম ৫টি খেলেছে ভারত। ইতোমধ্যে ৭ ম্যাচের ৫টিতেই হেরে বিশ্বকাপ স্বপ্ন চুরমার হয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকার। আফগানিস্তান ৬ ম্যাচে ১ পয়েন্টেরও দেখা পায়নি।

৬ ম্যাচে এখন পর্যন্ত হারের তিক্ততা হজম করতে হয়নি বর্তমান রানার্স আপ নিউজিল্যান্ডকে। ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনাল প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে কিউইরা। হাতে আছে আরও তিনটি ম্যাচে যেকোনও একটি জিতলে কিংবা পরিত্যাক্ত হলেও তাদেরকে শেষ চারের দৌড়ে থামানো আর সম্ভব নয়।

ভারতের বিপক্ষে একটি মাত্র পরাজয় ছাড়া বাকি ৫ ম্যাচেই জিতেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে অজিরা। বড় কোনও অঘটন না ঘটলেও ফিঞ্চ-ওয়ার্নারদেরও সেমিফাইনাল প্রায় নিশ্চিত।

এবারের বিশ্বকাপে ফিকচার থেকে বড় সুবিধা নিয়েছে ভারত। অন্যান্য দলগুলো যেখানে দুই দিন অন্তর অন্তর বেশিরভাগ ম্যাচ খেলছে সেখানে ভারত প্রায় প্রতিটি ম্যাচের আগে তিন-চার দিন বিশ্রাম নিতে পারছে। এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কম ৫ ম্যাচ খেলে ৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয় স্থানটি বিরাট কোহলিদের দখলে। চোখ কপালে উঠার মতো কোনও দৃশ্যের অবতারণা না হলে ধোনিদের এবারও সেমিফাইনাল খেলা থেকে আটকানো যাবে না হয়তো।

ক্রিকেট ইতিহাসের আষ্টেপৃষ্টে জড়িয়ে আছে ইংল্যান্ডের নামটি। তবে গত ৪৪ বছরেও আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ ঘরে তুলতে পারেনি রানীর দেশ। এবার বিশ্বকাপ শুরুর আগে থেকেই ইংল্যান্ডকে সবাই হট ফেবারিট তকমা দিয়ে বসে আছেন। দলটির খেলোয়াড়দের দিকে তাকালে ফেবারিটের ট্যাগ দেয়াই যায়। সবাই ভাবছে এবার বুঝি বিশ্বকাপের খরা ঘুচবে ইংলিশদের। কিন্তু গত ৬ ম্যাচে ২ হারে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তাদের অবস্থান এখন পয়েন্ট টেবিলের ৪ নম্বরে।

ইংল্যান্ডের বাকি তিনটি ম্যাচ নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সঙ্গে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, ১৯৯২ বিশ্বকাপের পরে এখন পর্যন্ত গত ২৭ বছরে ইংল্যান্ড কোনও বিশ্বকাপে এই তিন দলকে হারাতে পারেনি। ফলে ইংল্যান্ড যদি সেমিফাইনাল খেলতে চায় তবে তাদেরকে দীর্ঘ ২৭ বছরের ব্যর্থতা ঘুচাতে হবে। এই তিন দলের যেকোনও দুটিকে হারাতেই হবে। নয়তো স্বাগতিক হিসেবে আরও একবার আক্ষেপ আর অপেক্ষার আগুন গিলেই ঘরে ফিরতে হবে।

এই চার দলের পরেই এখন যথাক্রমে আছে শ্রীলঙ্কা (৬ পয়েন্ট), বাংলাদেশ (৫ পয়েন্ট) ও পাকিস্তান (৫ পয়েন্ট)। প্রত্যেকেরই ৩টি করে ম্যাচ বাকি। এর মধ্যে বাকি তিন ম্যাচে লঙ্কানদের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারত। এই তিন দলের অন্তত দুটিকে হারানো মোটেই সহজ কাজ হবে না শ্রীলঙ্কার জন্য।

পাকিস্তানকে খেলতে হবে নিউজিল্যান্ড, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের বিপক্ষে। পাকিরা আফগানদের তুলনায় শক্তিশালী হলেও তাদের অপর দুই প্রতিপক্ষ ছেড়ে কথা বলবে না। আর সেমিফাইনালে টিকে থাকতে বাংলাদেশের এখন হারাতে হবে আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানকে। হিসাবের খাতায় বাংলাদেশের সামনেও কঠিন চ্যালেঞ্জ।

ইতোমধ্যে ক্রিকেটবোদ্ধাদের অনেকেই যুক্তি খণ্ডন করতে শুরু করে দিয়েছেন। অনেকেই মনে করছেন, বিশেষত শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের কাছে হেরে ইংল্যান্ডের সেমিফাইনাল যাত্রাটা কঠিনতর হয়ে গেল। সেই সুযোগের শতভাগ কাজে লাগাতে পারলেও নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ভারতের সঙ্গে চতুর্থ দল হিসেবে সেমিফাইনালে দেখা যেতে পারে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ কিংবা পাকিস্তানকে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?