শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০১৮, ০১:২৬:৪২

মনোনয়নপত্র বাতিল: যেভাবে করবেন আপিল

মনোনয়নপত্র বাতিল: যেভাবে করবেন আপিল

ঢাকা: সারাদেশে আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগ্রহী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) হিসাব অনুযায়ী সারাদেশে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

তবে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা সোমবার (৩-৫ ডিসেম্বর) পর্যন্ত ইসির কাছে আপিল করতে পারবেন। ইসি আবদনের ওপর শুনানি করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবে।

জানা গেছে, আগামী ৫ ডিসেম্বর (বুধবার) পর্যন্ত মনোনয়ন ফিরে পেতে ইসিতে আপিল করা যাবে। আপিল আবেদন পাওয়ার পর ৬-৮ ডিসেম্বর আপিল আবেদনের শুনানি শেষে সিদ্ধান্ত জানাবে ইসি। আপিলের জন্য প্রার্থীদের অবশ্যই রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে যেতে হবে।

এদিকে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা আজ সোমবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল থেকে নির্বাচন কমিশনের কাছে আপিল করার কার্যক্রম শুরু করেছেন।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে জানানো হয়েছে কিভাবে মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করতে হবে। মনোনয়নপত্র গ্রহণ বা বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে আপিল দায়েরের নিয়মাবলীতে উল্লেখ করা হয়েছে:

রিটার্নিং অফিস কর্তৃক প্রদত্ত যে কোন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোন প্রার্থী বা কোন ব্যাংক মনোনয়ন পত্র বাছাইয়ের পরবর্তী তিন দিনেত মধ্যে অর্থাৎ ৩, ৪, ও ৫ ডিসেম্বর বিকেল ৫ টার মধ্যে প্রার্থী স্বয়ং অথবা প্রার্থী কর্তৃক লিখিত ক্ষমতা প্রদত্ত কোন ব্যক্তি আপিল দায়ের করতে পারবেন।

কমিশনকে সম্বোধন করে কমিশন সচিবালয়ের সচিবের নিকট আপিল দায়ের করতে হবে।

আপিল স্মারকলিপি আকারে হবে এবং মনোনয়নপত্র গ্রহণ বা বাতিলের তারিখ, আপিলের কারনে সম্বলিত বিবৃতি এবং রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক তর্কিত আদেশের একটি সত্যায়িত অনুলিপি সংযুক্ত করতে হবে। স্মারকলিপি আকারে দায়েরকৃত আপিলের একটি মূল কপিসহ মোট সার কপি দাখিল করতে হবে। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের আইন শাখা ৫১৮ নম্বর রুমে সংশ্লিষ্ট রেজিস্ট্রারে লিপবদ্ধ করে উক্ত আপিল সমূহ জমা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার (২ ডিসেম্বর) সারাদেশে ৭৮৬টি মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তরা। আর নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হয়েছেন ২ হাজার ২৭৯জন। এর মধ্যে ঢাকা অঞ্চলের ছয় জেলায় দাখিল হওয়া ৪৭৭টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে ১১৬টিই বাতিল হয়েছে। বৈধ ঘোষণা করা হয়ে ৩৬৩টি।

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?