বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১, ০৯:৩৪:৪৫

যেখানে যৌনতার বিনিময়ে মেলে পানি, খাবার, টয়লেট ব্যবহারের সুযোগ

যেখানে যৌনতার বিনিময়ে মেলে পানি, খাবার, টয়লেট ব্যবহারের সুযোগ

নিউজ ডেস্ক : যৌনতার বিনিময়ে বিশুদ্ধ পানি, খাবার ও টয়লেট ব্যবহারের সুযোগ করে দেওয়াসহ ভয়াবহ যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন লিবিয়ার বন্দিশিবিরগুলোতে অভিবাসনপ্রত্যাশী নারী, পুরুষ ও শিশুরা। লিবিয়ার বন্দিশিবিরগুলোতে যৌন সহিংসতাসহ ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনার প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল৷

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০২০ ও ২০২১ সালে যেসব অভিবাসনপ্রত্যাশীরা ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে প্রবেশের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে তাদের লিবিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে ওই সব বন্দিশিবিরে রাখা হয়েছে। সেখানেই ওই ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বন্দিরা।

পোপ ফ্রান্সিস ও জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বন্দিদের ওপর নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন।

সেখানকার বন্দি কয়েকজন নারী অ্যামনেস্টির কাছে অভিযোগ করেছেন যে, প্রহরীরা যৌনতার বিনিময়ে তাদের বিশুদ্ধ পানি, বিছানা এমনকি ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন।

প্রহরীদের দ্বারা বারবার ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন অন্তস্বত্ত্বা আরেক নারী। এমনকি পুরুষ আর কিশোররাও যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে অ্যামনেস্টির প্রতিবেদনে উঠে এসেছে।

১৪ থেকে ৫০ বছর বয়সী ৫৩ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার নিয়ে ওই প্রতিবেদন তৈরি করেছে অ্যামনেস্টি। নাইজেরিয়া, সোমালিয়া আর সিরিয়ার নাগরিক ওই সাক্ষাৎকারদাতা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অনেকেই বন্দি শিবির থেকে পালিয়েছেন। কেউ কেউ টেলিফোনে নিজেদের দুর্দশার কথা জানিয়েছেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইতালি দীর্ঘদিন ধরে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অনুপ্রবেশ আটকাতে লিবিয়ার কোস্টগার্ডদের প্রশিক্ষণ এবং অর্থায়ন করে আসছে৷ এই কোস্টগার্ডরা চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে ১৫ হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশীকে ভূমধ্যসাগর থেকে লিবিয়ায় ফেরত পাঠিয়েছে৷ 

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

পুরো ঢাকায় ‘অঘোষিত কারফিউ’ চলছে। সরকার জনগণকে জিম্মি করে জনগণকে বাদ দিয়ে বিদেশি অতিথিদের নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ব্যস্ত। ফখরুলের এক মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?