রবিবার, ০৯ মে ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ০৫:৩৭:৫৮

স্যামসাং-কে টপকে আফ্রিকার এক নম্বর স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এখন টেকনো

স্যামসাং-কে টপকে আফ্রিকার এক নম্বর স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এখন টেকনো

ঢাকা : স্মার্টফোন জগতের অন্যতম সেরা ব্র্যান্ড স্যামসাং-কে টপকে, ২০২০ সালে আফ্রিকার ১ নম্বর স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের স্থান দখল করে চমক সৃষ্টি করেছে গ্রোবাল প্রিমিয়াম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড টেকনো।

কাউন্টারপয়েন্ট রিসার্চ’স মার্কেট মনিটর-এর একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ২০১৯-এ টেকনোর স্মার্টফোন শিপমেন্ট মার্কেটের শেয়ার যেখানে ছিল ১৭ শতাংশ তা ২০২০ সালে বেড়ে দাঁড়ায় ১৮ শতাংশে এবং অন্যদিকে স্যামসাং-এর শেয়ার এক বছরের ব্যবধানে ১৮ শতাংশ থেকে কমে ১৫ শতাংশে নেমে আসে।

বছরের প্রথম অর্ধেক সময় সাব-সাহারান আফ্রিকা মার্কেটজুড়ে বাঁধার সম্মুখীন হলেও, বছরের বাকি অর্ধেক সময়ে সাশ্রয়ী মূল্যে স্মার্টফোন বাজারে এনে ঘুড়ে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে টেকনো। ২০১৯-এর তুলনায় ২০২০ সালে স্মার্টফোন শিপমেন্ট ৬.৭ শতাংশ হ্রাস পেলেও ট্রানশান-এর মালিকানাধীন ব্র্যান্ডটি তাদের অর্জনে সক্ষম হয়েছে।

আফ্রিকান স্মার্টফোন শিপমেন্ট মার্কেট বেশ কেন্দ্রীভূত। পুরো বাজারজুড়ে যেমন অসংখ্য ব্র্যান্ডের ছোট ছোট শেয়ার রয়েছে ঠিক তেমনই শীর্ষ শেয়ারহোল্ডারদের (টেকনো, স্যামসাং, আইটেল ইত্যাদি) মধ্যে রয়েছে তুমুল প্রতিযোগীতা। কাউন্টারপয়েন্ট-এর মতে, ২০২১-এ এই বাজারে আরও বড় শেয়ার দখল করতে যাচ্ছে টেকনো।

বছরজুড়ে, আফ্রিকান স্মার্টফোন মার্কেট ব্যবসায়ের দিক দিয়ে অন্যান্য অঞ্চলকে ছাড়িয়ে গেলেও বৈশ্বিক দূর্যোগের কবল থেকে রক্ষা পায়নি। মহামারীর ছোবলে রিটেইল এবং সাপ্লাই চেইন বিঘ্নিত হওয়ার ফলে বছরের প্রথমার্ধে স্মার্টফোন মার্কেটে বিরূপ প্রভাব পড়েছিল।

বিশেষ করে ২০২০-এর চতুর্থাংশ সময়টি আফ্রিকান স্মার্টফোন মার্কেটের জন্য ছিল খুবই গুরুত্বর। বেশিরভাগ দেশে লকডাউন থাকার ফলে চাহিদা কমে যায় অনেকাংশেই। সেই সময়টিতে স্মার্টফোন শিপমেন্ট লক্ষণীয় মাত্রায় হ্রাস পায়, যা ২০১৯-এর তুলনায় ২৭ শতাংশ বেশি।

তবে, বছরের দ্বিতীয়ার্ধে চাহিদা বৃদ্ধির ফলে পরিস্থিতি আংশিকভাবে উন্নতি করতে শুরু করে। ২০২০-এর শেষ প্রান্তিকে ২০১৯-এর তুলনায় যা ১.৫ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

টেকনো সম্পর্কে -
টেকনো মোবাইল ট্রানশান হোল্ডিংস-এর একটি প্রিমিয়াম মোবাইল ব্র্যান্ড, যাদের পোর্টফোলিও জুড়ে রয়েছে ফোন, স্মার্টফোন, ট্যাবলেট ইত্যাদি। ব্র্যান্ড হিসেবে টেকনো অত্যাধুনিক প্রযুক্তিগুলোকে স্থানীয় পণ্যে রূপান্তরিত করতে কাজ করে যাচ্ছে এবং তাদের মূলমন্ত্র হলো- “থিংক গ্লোবালী, অ্যাক্ট লোকালী”।

২০০৬ সালে যাত্রা শুরু করা টেকনোর উপস্থিতি রয়েছে বিশ্বের ৬০ টিরও বেশি দেশে। বর্তমানে তারা আফ্রিকার সেরা ৩ টি মোবাইল ফোন ব্র্যান্ডের ১ টি এবং তাদের ক্ষ্যাতি রয়েছে বিশ্বজুড়েও। এছাড়াও, টেকনো বিখ্যাত ফুটবল ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি’র অফিশিয়াল ট্যাবলেট ও হ্যান্ডসেট পার্টনার।

আজকের প্রশ্ন

পুরো ঢাকায় ‘অঘোষিত কারফিউ’ চলছে। সরকার জনগণকে জিম্মি করে জনগণকে বাদ দিয়ে বিদেশি অতিথিদের নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ব্যস্ত। ফখরুলের এক মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?