মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ০৩:১৮:৫৮

স্মার্টফোন বার বার স্লো হলে করণীয়

স্মার্টফোন বার বার স্লো হলে করণীয়

ঢাকা : যে কোনো স্মার্টফোনই বার বার স্লো হয়ে যেতে পারে। কাজ করতে গিয়ে নানা রকমের সমস্যা হতে পারে। আবার মাঝে মাঝে ফোন পুরনো হলে বা নানা রকম অ্যাপসের কারণেই স্লো হতে পারে। দেখা যায় হঠাৎ করেই এ সমস্যা নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয় ব্যবহারকারীদের। তবে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কিছু পন্থা অবলম্বন করতে পারেন ব্যবহারকারীরা।

১. সাধারণত স্মার্টফোনে থাকা অ্যাপ ব্যবহার করলে ক্যাশ (Cache) রূপে ফোনের মেমোরিতে থেকে যায়। অনেক সময় Cache জমলে ফোন স্লো হয়ে যায় তাই নিয়মিত ক্লিন করা দরকার। ফোনের সেটিংসে গিয়ে স্টোরেজ অপশনে ক্লিক করলে প্রতিটি অ্যাপের Cache ক্লিন করতে হবে।

২. অযাচিত বা অব্যবহৃত অ্যাপ ফোনে না রেখে ডিলিট করে দিতে হবে। এছাড়া অপ্রয়োজনীয় ছবি বা ভিডিও মুছে ফোনের স্টোরেজ ফাঁকা করে দিলে ফোনের ‘হ্যাং’ হওয়ার সমস্যা দূর হবে। কেননা স্টোরেজ পূর্ণ হয়ে গেলেও ফোন স্লো কাজ করে।

আরও পড়ুন: বাজারে কমদামে ৬.৫৩ ইঞ্চি ডিসপ্লের স্মার্টফোন

৩. স্মার্টফোনটি সবসময় সফটওয়্যারের আপডেট ইন্সটল রাখতে হবে। আপডেট দিতে বা নতুন আপডেট চেক করতে ফোনের সেটিংস গিয়ে সিস্টেম আপডেট অপশন চেক করতে হবে। এখানে ফোনটি শেষ কবে আপডেট হয়েছে বা নির্মাতা সংস্থা নতুন কোনও আপডেট দিয়েছে কিনা তা দেখতে পাবেন।

৪. অনেক ব্যবহারকারী স্মার্টফোনের ডিসপ্লে সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য লাইভ ওয়ালপেপার ব্যবহার করেন। ফোনের পারফরম্যান্সে এটি খুবই প্রভাব ফেলে। তাই ফোনে সাধারণ ওয়ালপেপার ব্যবহার করা উচিত। অন্তত পুরনো স্মার্টফোনে কখনই লাইভ ওয়ালপেপার ব্যবহার করা যাবে না।

৫. যদি আপনার স্মার্ট ফোনটির গতি অতিরিক্ত মাত্রায় স্লো হয়ে যায় তাহলে ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করে নিতে পারেন। ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করার আগে অবশ্যই আপনার অ্যান্ড্রয়েডের সব ডাটার ব্যাকআপ নিয়ে রাখবেন। কেননা ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করলে ফোনের সব ডাটা মুছে যায়। এরপর আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি সবকিছু নতুনভাবে সেটআপ করুন।

৬. হার্ডওয়্যার ত্রুটির কারণেও প্রিয় স্মার্টফোনটি স্লো হয়ে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই নির্দিষ্ট ব্র্যান্ডের সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?