সোমবার, ৩০ নভেম্বর ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০, ০৮:৪৩:৩১

ফুডপান্ডার বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা কর ফাঁকির অভিযোগ

ফুডপান্ডার বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা কর ফাঁকির অভিযোগ

ঢাকা : জনপ্রিয় খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডার বিরুদ্ধে ৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (২৮ আগস্ট), ফুডপান্ডার গুলশান-২ কার্যালয়ে অভিযান চালায় ভ্যাট গোয়েন্দারা। এসময় সেখানে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির তথ্য ও প্রমাণ পেয়েছে গোয়েন্দারা।

ভ্যাট গোয়েন্দার উপপরিচালক নাজমুন্নাহার কায়সার ও সহকারী পরিচালক মো. মহিউদ্দীনের পরিচালনায় এ অভিযানে ভ্যাট সংক্রান্ত নথিপত্র ও প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত কম্পিউটার তল্লাশি করা হয়। এসময় প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার ল্যাপটপে বিক্রয়ের কিছু গোপন তথ্য পাওয়া যায়। গোয়েন্দারা ওই তথ্যসহ আরো কিছু বাণিজ্যিক দলিলাদি জব্দ করেছেন।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত ২৭ কোটি ৫৮ লাখ ৫৭ হাজার ৫১৭ টাকার বিক্রির তথ্য পাওয়া যায়। যেখানে গুলশান ভ্যাট সার্কেলে দাখিলপত্রে ১৫ কোটি ৬৫ লাখ ১৯ হাজার ৯৭২ টাকা বিক্রয়মূল্য প্রদর্শন করেছে। প্রতিষ্ঠানটি গত আট মাসে ১১ কোটি ৯৩ লাখ ৩৭ হাজার ৫৪৫ টাকা বিক্রয় তথ্য গোপন করেছে, যার ওপর পরিহার করা মূল্য সংযোজন কর (মূসক) ৫৩ লাখ ১০ হাজার ৭৪ টাকা। এই ভ্যাট যথাসময়ে পরিশোধ না করায় আইন অনুযায়ী মাসিক ২ শতাংশ হারে সুদ ৯ লাখ ৬৫ হাজার ৬২০ টাকা প্রযোজ্য হবে। এমনকি প্রতিষ্ঠানটি বাড়ি ভাড়া বাবদ মোট ৫৬ লাখ ৬৬ হাজার ২৬ টাকা ভ্যাট পরিহার করেছে। আর, তিষ্ঠানটি লিমিটেড কোম্পানি হওয়া সত্ত্বেও পণ্য ক্রয়ের ওপর কোনো উৎসে মূসক পরিশোধ করেনি। জব্দ করা রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত উৎসে মূসক বাবদ ১ কোটি ২৪ লাখ ৩৫ হাজার ৫৫৩ টাকা পরিহার করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সব মিলিয়ে প্রতিষ্ঠানটি ৩ কোটি ৪০ লাখ টাকার ভ্যাট ফাঁকির সঙ্গে জড়িত।

জানা গেছে, এ ঘটনায় ভ্যাট আইন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নিষ্পত্তির জন্য ঢাকা উত্তর ভ্যাট কমিশনারেটে প্রেরণ করা হবে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?